• মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads
খালেদার চিকিৎসা নিয়ে রিটের শুনানি আজ

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া

সংরক্ষিত ছবি

আইন-আদালত

খালেদার চিকিৎসা নিয়ে রিটের শুনানি আজ

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮

দুর্নীতির দায়ে কারাবন্দি বিএনপিপ্রধান খালেদা জিয়ার বিশেষায়িত হাসপাতালে চিকিৎসাসেবার নির্দেশনা চেয়ে দায়ের করা রিট আবেদনের শুনানি আজ মঙ্গলবার। প্রস্তুতির জন্য খালেদার আইনজীবীর সময় চাওয়ায় শুনানি পিছিয়ে ঠিক করেছেন হাইকোর্ট। মূলত সরকার পক্ষ থেকে চিকিৎসার জন্য পদক্ষেপ নেওয়া হয় কি না এ জন্যই এক দিন সময় নেওয়া হয়েছে বলে আইনজীবী সূত্রে জানা গেছে। গতকাল সোমবার বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি আহমেদ সোহেল সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের দ্বৈত বেঞ্চে খালেদা জিয়ার আইনজীবী কায়সার কামাল প্রস্তুতির জন্য সময় চান। এ সময় সরকার পক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোখলেছুর রহমান। এর পরিপ্রেক্ষিতে রিট আবেদনের বিষয়ে শুনানি ‘নট টুডে’ (আজ নয়) বলে আদেশ দেন হাইকোর্ট।

গত রোববার খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসা ও কারাগারে আদালত স্থানান্তরের বিষয়ে আপত্তি জানিয়ে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের কাছে অভিযোগ জানান বিএনপি চেয়ারপারসনের আইনজীবীরা। পরে খালেদা জিয়ার বিশেষায়িত হাসপাতালে চিকিৎসাসেবার নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট আবেদন করেন আইনজীবীরা। রিটে খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসার ব্যবস্থা নিতে বিবাদীদের নিষ্ক্রিয়তা কেন বেআইনি হবে না, তা জানাতে রুল জারির আরজি রয়েছে। বিবাদী করা হয় স্বরাষ্ট্র সচিব, কারা মহাপরিদর্শক (প্রিজন), ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সুপারসহ সাতজনকে।

খালেদা জিয়ার আইনজীবী নওশাদ জমির বলেন, ইউনাইটেড হাসপাতাল বা বিশেষায়িত হাসপাতালে খালেদা জিয়াকে চিকিৎসাসেবা দেওয়ার নির্দেশনা চেয়ে রিটটি দায়ের করা হয়েছে। পাশাপাশি খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য একটি বিশেষ বোর্ড গঠন এবং তার চিকিৎসাসেবার যাবতীয় নথিপত্র দাখিলের নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, খালেদা জিয়াকে যথাযথ চিকিৎসাসেবা না দেওয়া সংবিধানের ৩২ ও ৩৫ (৫)-এর পরিপন্থী।

গত ৫ সেপ্টেম্বর নাজিম উদ্দিন রোডে ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগারের প্রশাসনিক ভবনের সাত নম্বর কক্ষে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার শুনানি হয়। ওই শুনানিতে হুইল চেয়ারে করে আদালতে হাজির করা হয় খালেদা জিয়া। আগের দিন সরকার বকশীবাজারের আলিয়া মাদরাসা মাঠের অস্থায়ী আদালত থেকে পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে আদালত স্থানান্তরের প্রজ্ঞাপন জারি করে। তবে সেদিন খালেদার আইনজীবীরা আদালতে উপস্থিত না হওয়ায় কাল বুধবার পর্যন্ত যুক্তিতর্ক মুলতবি করা হয়।

পরে ৭ সেপ্টেম্বর বিকালে জয়নুল আবেদীনের নেতৃত্বে চার আইনজীবী কেন্দ্রীয় কারাগারে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে যান। সেখানে আইনজীবীরা প্রায় ঘণ্টাখানেক খালেদা জিয়ার সঙ্গে কথা বলেন।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে। সেদিনই তাকে ওই কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads