• মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

৩০ এপ্রিলের আগে-পরে উড়বে বঙ্গবন্ধু-১ : বিটিআরসি চেয়ারম্যান

আবারো পেছাচ্ছে উৎক্ষেপণের সময়

  • এম. রেজাউল করিম
  • প্রকাশিত ১১ এপ্রিল ২০১৮

সবকিছু ঠিক থাকলে চলতি মাসের ২৪ তারিখ মহাকাশে উৎক্ষেপণের কথা ছিল দেশের প্রথম স্যাটেলাইট বঙ্গবন্ধু-১-এর। তবে তা আর হচ্ছে না। কারণ, উড্ডয়নের তারিখ আরো এক সপ্তাহ পিছিয়ে তা ৩০ এপ্রিলের আশপাশে হতে পারে বলে জানা গেছে।

সময় পেছানোর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন রেগুলেটরি কমিশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ। মঙ্গলবার বাংলাদেশের খবরকে তিনি বলেন, স্পেসএক্স থেকে আমাদের যা জানানো হয়, আমরা হুবহু সেই তথ্যই সবাইকে জানাচ্ছি। আমরা কিন্তু তথ্যের কোনো গরমিল করছি না। তাই কেউ যদি মনে করে, উৎক্ষেপণের সময় বার বার আমরা পেছাচ্ছি।

বিটিআরসি চেয়ারম্যান বলেন, উৎক্ষেপণের সময় এখনো ঠিক হয়নি। পূর্বনির্ধারিত ৩০ এপ্রিলেই আছে। তবে ধারণা করা হচ্ছে দুই-এক দিন এদিক-সেদিক হতে পারে।

ড. শাহজাহান মাহমুদ আরো বলেন, আমরা প্রতিনিয়তই স্পেসএক্সের সঙ্গে যোগাযোগ রাখি। আমাদের লোকজনও ওখানে আছে, যারা স্যাটেলাইটটিকে নিয়মিত পর্যবেক্ষণ করছেন। যেকোনো পর্যবেক্ষণ শেষ করেই তারা আমাদের কাছে ফলাফল পাঠান। আমরা তা রিভিউ করে চূড়ান্ত করে দেই। তখন তারা বলেন কতদিনের মধ্যে এই স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করা সম্ভব। এর মধ্যে আমাদেরকে যদি তারা কিছু জানান আমরা আপনাদেরকে জানিয়ে দেব। আমরা এখানে শুধু পোস্ট অফিসের দায়িত্ব পালন করছি মাত্র।

এদিকে স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের নির্ধারিত সময়ের বিষয়ে জানতে চাইলে কিছুই জানেন না বলে মন্তব্য করেছেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। বাংলাদেশের খবরকে তিনি বলেন, উৎক্ষেপণের বিষয়ে থ্যালাস অ্যালেনিয়া থেকে আমাকে সুনির্দিষ্ট কোনো তারিখ জানানো হয়নি। তাই কবে উৎক্ষেপণ হবে, নাকি সময় পিছিয়েছে এ বিষয়ে আমি কিছুই জানি না। এমনকি বিটিআরসি বা ওই সংস্থার চেয়ারম্যান, কারো পক্ষ থেকেই তাকে কিছু জানানো হয়নি বলে জানিয়েছেন মন্ত্রী।

এ বিষয়ে জানার জন্য স্যাটেলাইট প্রকল্পের পরিচালকের সঙ্গে মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন ধরেননি।

বিটিআরসি সূত্রে জানা যায়, এখন স্যাটেলাইটটির পরীক্ষা-নিরীক্ষার অন্তত ৫০ শতাংশ বেশ ভালোভাবেই শেষ হয়েছে বলে খবর পেয়েছেন তারা। এদিকে দিনক্ষণ চূড়ান্ত না হওয়ায় এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের প্রতিনিধিদলের মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা (স্পেসএক্সের উৎক্ষেপণ প্যাড) যাওয়ার বিষয়টি চূড়ান্ত হচ্ছে না। ২২ জনের একটি প্রতিনিধিদলের ওই সময় যাওয়ার কথা রয়েছে। এদিকে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন এবং টেলিযোগাযোগমন্ত্রীর কার্যালয়েও এক সপ্তাহ সময় পেছানোর বিষয়ে আলোচনা চলছে। সে অনুসারেই প্রস্তুতি নিচ্ছেন সবাই।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশের প্রথম এ স্যাটেলাইট তৈরি করেছে ফ্রান্সের কোম্পানি থ্যালাস অ্যালেনিয়া স্পেস। ২৯ মার্চ ফ্রান্সের নাইস বিমানবন্দরে নেওয়া হয় বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইটটি। অ্যানতোনাভ কার্গো উড়োজাহাজে করে ৩০ মার্চ স্থানীয় সময়ানুযায়ী সকাল ৬টা থেকে ৮টার মধ্যে ফ্লোরিডার ক্যাপ ক্যানাভেরালের উদ্দেশে রওনা দেয় বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইটটি। যাত্রাপথে বস্টনে বিরতি নিয়ে ৩০ মার্চ ক্যাপ ক্যানাভেরালে স্পেসএক্সের লঞ্চ প্যাডে নামে বঙ্গবন্ধু-১। ওইদিনই ফ্যালকন-৯-এ ইন্টিগ্রেশন, টেস্টিং এবং ফুয়েলিং করা হয়। ফ্যালকন-৯-এর আপগ্রেডেড ব্লক-৫ ভার্সনে প্রথম উৎক্ষেপণ হবে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের।

উল্লেখ্য, এর আগেও একাধিকবার পেছানো হয়েছিল স্যাটেলাইট উড্ডয়নের তারিখ। ২০১৭ সালের ১৬ ডিসেম্বর উড্ডয়নের কথা থাকলেও হারিকেন ‘ইরমা’র কারণে উৎক্ষেপণকেন্দ্র ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ফলে অন্যান্য দেশের স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণও বন্ধ হয়ে যায়। পরবর্তীতে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি এবং ৫ এপ্রিল উৎক্ষেপণের কথা থাকলেও কিছু যান্ত্রিক ত্রুটি পুনঃমেরামতের কারণে আবারো পেছানো হয় এই সময়।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads