• সোমবার, ২৬ আগস্ট ২০১৯, ১১ ভাদ্র ১৪২৫
ads
সাইবার নিরাপত্তায় বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ করবে রাশিয়া

সাইবার নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ করবে রাশিয়া

ছবি : বাংলাদেশের খবর

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

সাইবার নিরাপত্তায় বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ করবে রাশিয়া

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ২১ মে ২০১৮

সাইবার নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ করবে রাশিয়া। এ প্রত্যাশার মধ্য দিয়ে গতকাল রোববার শেষ হয়েছে রাশিয়া-বাংলাদেশ আইটি সামিট ২০১৮।

রাজধানীর আগারগাঁওয়ে আইসিটি টাওয়ারে অনুষ্ঠিত এ সামিট অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানের শুরুতে বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হোসনে আরা বেগম বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতে সম্ভাবনা সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য তুলে ধরেন।

তিনি বলেন, ‘দেশের ২৮টি স্থানে হাইটেক পার্ক, সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক স্থাপন করছে সরকার। এরই মধ্যে জনতা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক এবং যশোরে শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কে কাজ শুরু হয়েছে।’

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার জানান- বাংলাদেশ যত অগ্রগতির দিকে যাচ্ছে ততই চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হচ্ছে। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশকে মানুষ চেনে একটি দেশ হিসেবে যে দেশ নিজের সামনে ডিজিটাল শব্দটি ব্যবহারের সক্ষমতা অর্জন করেছে। আমরা যতই অগ্রগতির দিকে যাচ্ছি ততই আমাদের সামনে চ্যালেঞ্জ আসছে।’ এ চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবেলা করা জরুরি বলেও মনে করেন তিনি।

তিনি আরো বলেন, ‘চলতি বছরের শেষ নাগাদ দেশে এমন কোনো ইউনিয়ন থাকবে না যেখানে ফাইবার অপটিক্যাল কানেক্টিভিটি পৌঁছাতে পারব না। এ বছরই প্রাথমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের প্রোগ্রামিংয়ের সঙ্গে যুক্ত করেছি। আমরা কিছুদিন আগে জাপানে গিয়ে চিন্তা করেছিলাম শিশুদের প্রোগ্রামিং শিক্ষার বিষয়ে তারা এগিয়ে গেছে। কিন্তু না, তারা বিষয়টি নিয়ে চিন্তা শুরু করেছে। আমার মনে হয়েছে ২০২০-এর আগে আমরা এটি করে ফেলতে পারব।’

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে বর্তমান সরকার সারা দেশে হাইটেক পার্ক, সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক স্থাপন করছে। রুশ ফেডারেশন এসব পার্কে বিনিয়োগ করতে পারে। সরকার দেশকে হার্ডওয়্যার ও সফটওয়্যার ম্যানুফ্যাকচারিং হাব হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে চায়।’

বাংলাদেশের ক্রমবর্ধমান উন্নয়নের কথা উল্লেখ করে রুশ আইটি এক্সপার্ট আনঝিগানোভ ইলিয় বলেন, ‘উন্নয়নের এ ধারা আরো দ্রুত এগিয়ে নিতে ই-গভর্নমেন্ট, স্মার্টসিটি, হেলথ সার্ভিস, স্মার্ট পাওয়ার ও এনার্জিসহ সব সেক্টর দ্রুত ডিজিটালাইজড করতে হবে।’ রাশিয়া বাংলাদেশের সব উন্নয়ন কার্যক্রমের অংশীদার হতে প্রস্তুত বলেও জানান তিনি।

আইটি সামিটে বাংলাদেশের সাইবার সিকিউরিটি, ই-গভর্নমেন্ট, স্মার্টসিটি, ডাটা সেন্টার, আই-ক্লাউড, ফরেনসিক ল্যাবসহ অন্যান্য আইটি সেক্টরে একযোগে কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করা হয়।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আইসিটি বিভাগের সচিব সুবীর কিশোর চৌধুরী।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads