• বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৪
ads
কৃত্রিম ডিম্বাশয়ে মা হবেন ক্যানসার আক্রান্তরাও!

এসব ডিম্বাশয়ে ডিম্বাণুগুলো কয়েক সপ্তাহ পর্যন্ত ভালো থাকতে পারে

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

কৃত্রিম ডিম্বাশয়ে মা হবেন ক্যানসার আক্রান্তরাও!

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ০৩ জুলাই ২০১৮

জৈবিক কারণেই মানুষের রোগ হয়, আবার চিকিৎসায় সুস্থও হয়। তবে কিছু কিছু রোগ আছে যার চিকিৎসার সরল কোনো উপায় নেই, আবিষ্কৃত হয়নি সেসব রোগের যথাযথ কোনো ওষুধও। যেমন, ক্যানসার। আজ পর্যন্ত এই রোগটির কোনো কার্যকর ওষুধ পাওয়া যায়নি। শেষ চেষ্টা হিসেবে আশ্রয় নিতে হয় কেমোথেরাপির। কোনো কোনো ক্ষেত্রে কেটে ফেলতে হয় শরীরের আক্রান্ত অংশ।

কিন্তু এই কেমোথেরাপির পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় বিকল হয়ে যেতে পারে শরীরের যেকোনো অঙ্গ বা তার কার্যক্রম। যেমন, যেকোনো ধরনের ক্যানসারের কারণে নারীদের কেমোথেরাপি দিলে তারা ডিম্বাশয়ের কার্যক্ষমতা হারিয়ে বন্ধ্যা হয়ে যেতে পারেন। আবার জরায়ু বা ডিম্বাশয়ের ক্যানসারের কারণে যাদের সেই অঙ্গগুলো কেটে ফেলতে হয় তাদেরও মা হওয়ার সম্ভাবনাকে কেটে ফেলতে হয় স্বপ্ন থেকে।

ডিম্বাশয়ের ক্যানসারের কারণে প্রতিবছর বিশ্বের কয়েক লাখ নারীর মা হওয়ার স্বপ্ন ভেঙে যাচ্ছে। কারণ এই রোগে আক্রান্ত হওয়া মানেই অন্যতম প্রজনন অঙ্গটি ছেঁটে ফেলতেই হবে বা বেঁচে থাকার জন্য কেমোথেরাপি নিতে হবে।

তবে চিকিৎসাবিজ্ঞানীরা স্বপ্নভঙ্গ সেইসব নারীর স্বপ্ন বাস্তবায়নের নতুন এক উপায় খুঁজে পেয়েছেন। তারা গবেষণাগারে কৃত্রিমভাবে তৈরি করেছেন ডিম্বাশয়। মানুষের শরীরের কলা আর ডিম্বাণু নিয়েই এটি তৈরি করেছেন তারা।

ডেনমার্কের কোপেনহেগেনে ক্যানসারের বিশেষায়িত হাসপাতাল রিগস হসপিটালের চিকিৎসক সুসানি পস ও তার দল তৈরি করেছেন এই কৃত্রিম ডিম্বাশয়। সুসানি পসের আশা, তাদের নতুন এই আবিষ্কার ক্যানসার ছাড়াও থ্যালাসেমিয়া বা অন্য কোনো জটিল রোগের কারণে ডিম্বাশয়ের কার্যক্ষমতা কমে গেলে সেক্ষেত্রেও সহায়তা করতে পারবে।

সুসানি পস জানান, তারা দেখেছেন প্রাথমিকভাবে তৈরি এসব ডিম্বাশয়ে ডিম্বাণুগুলো কয়েক সপ্তাহ পর্যন্ত ভালো থাকতে পারে। আর এটিই আশা জাগাচ্ছে ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে কোনো নারীর ডিম্বাশয় অকেজো হলে বা ফেলে দিলেও মা হওয়ার আশা পুরোপুরি হারিয়ে যাচ্ছে না। কৃত্রিম ডিম্বাশয়ই ক্যানসার চিকিৎসার পরেও নারীদের মা হওয়ার সুযোগ করে দেবে।

গার্ডিয়ান এক খবরে জানিয়েছে, কৃত্রিম এই ডিম্বাশয়ের মাধ্যমে গর্ভধারণের জন্য আরো বছর চারেক অপেক্ষা করতে হবে। তবে এখনই যারা এই রোগের প্রাথমিক পর্যায়ে আছেন তারা তাদের ডিম্বাশয়কলা হিমায়িত করে সংরক্ষণ করে রাখলে তিন-চার বছর পর মা হতে পারবেন। আর সেটা আইভিএফ বা কোনো কৃত্রিম উপায়ে নয়, প্রাকৃতিকভাবেই গর্ভধারণ করতে পারবেন তারা।

সুসানি পস জানান, ক্যানসার আক্রান্ত অনেক রোগীর ক্ষেত্রেই কৃত্রিম ডিম্বাশয় প্রতিস্থাপনের কাজটি বেশ নিরাপদেই হবে। তবে লিউকেমিয়ার মতো রোগে আক্রান্তদের বেলায় নতুন ডিম্বাশয়েও সংক্রমণ হতে পারে।

কৃত্রিম এই ডিম্বাশয়টি তৈরি করতে বিজ্ঞানীরা ডিম্বাশয়ের কলা ও ডিম্বাণুর পাশাপাশি আরো কিছু রাসায়নিকও ব্যবহারও করেছেন। পরে টিস্যু ও কিছু প্রোটিনের ক্রিয়ায় একটা বৃহৎ কোলাজেন তৈরি করেন। আর সেখানে স্কেফফোল্ড নামের কলাও ছড়িয়ে দেন। পরে তারা দেখেন, তার মধ্যেই প্রাথমিক পর্যায়ের কিছু ডিম্বাণুও তৈরি হয়েছে।

তবে এই প্রক্রিয়াটি ঠিক কীভাবে কাজ করবে তার বিস্তারিত জানাননি সুসানি পস। তিনি জানান, শিগগির বার্সালোয় অনুষ্ঠেয় একটি সভায় এ বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads