• বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৪
ads
লবণ কম খেলেও বাড়ে স্বাস্থ্যঝুঁকি

অসংক্রামক রোগকে আরো ঝুঁকিতে ফেলছে খাবারে অতিরিক্ত লবণ গ্রহণ

ছবি :

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

লবণ কম খেলেও বাড়ে স্বাস্থ্যঝুঁকি

  • আসিফ খান
  • প্রকাশিত ১৯ আগস্ট ২০১৮

বাংলাদেশে মোট অসুস্থ মানুষের ৬১ শতাংশই অসংক্রামক ব্যাধিতে আক্রান্ত। আর হূদরোগ, ক্যানসার, ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, কিডনি রোগের মতো অসংক্রামক রোগ দেশের ৫৯ শতাংশ মৃত্যুর কারণ। গবেষকরা বলছেন, এসব অসংক্রামক রোগকে আরো ঝুঁকিতে ফেলছে খাবারে অতিরিক্ত লবণ গ্রহণ। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) গবেষকদের করা ওই গবেষণায় দেখা গেছে, বাংলাদেশের মানুষ দৈনিক ৬ থেকে ৭ গ্রাম লবণ খায়। অথচ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলেছে, দৈনিক ৫ গ্রামের বেশি লবণ খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ঝুঁকির। এ কারণেই হূদরোগ, ক্যানসার, ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, কিডনি রোগের চিকিৎসকরা লবণ কম খাওয়ার ওপর বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে থাকেন।

তবে নতুন এক গবেষণায় বলা হচ্ছে, চিকিৎসকদের এই পরামর্শে কেউ যদি লবণ খাওয়ার পরিমাণ একেবারে কমিয়ে দেয় তবে তার স্বাস্থ্যঝুঁকি বেড়ে যায়। চিকিৎসা সাময়িকী ল্যানসেটে প্রকাশিত এই সংক্রান্ত গবেষণা নিবন্ধে বলা হয়েছে, কম বা বেশি লবণ খাওয়া দুটোই স্বাস্থ্যের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ।

গবেষণায় দেখা গেছে, দিনে পাঁচ গ্রামের কম লবণ খেলে কার্ডিওভাস্কুলার রোগ দেখা দিতে পারে। এ গবেষণা ১৮টি দেশের ৯৫,৫০০ মানুষের ওপর পরিচালিত হয়েছে। আর গবেষণাটি করেছেন ম্যাকমাস্টার বিশ্ববিদ্যালয়ের পপুলেশন হেলথ রিসার্স ইনস্টিটিউট এবং হ্যামিল্টন হেলথ সায়েন্সসহ মোট ২১টি দেশের গবেষকরা। তাদের দাবি, মানুষের শরীরের নানা কাজের জন্য সোডিয়াম একটি অপরিহার্য উপাদান। কিন্তু লবণের কথিত স্বাস্থ্যঝুঁকির কথা মাথায় রেখে কেউ যদি লবণ খাওয়া একেবারে কমিয়ে দেয় তবে শরীর প্রয়োজনীয় সোডিয়াম থেকে বঞ্চিত হবে। এর প্রভাব পড়বে স্বাস্থ্যে।

এ বিষয়ে, ম্যাকমাস্টার বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক অ্যান্ড্রু মেন্টের বক্তব্য হচ্ছে, গবেষণায় তারা দেখেছেন, সুস্বাস্থ্যের জন্য সোডিয়াম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে। আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য সোডিয়ামের মতো খনিজ উপাদান প্রয়োজন। তবে খুবই কম বা বেশি লবণ খাওয়ার কারণে ক্ষতি হতে পারে।

তিনি বলেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশনা মতে একজন পূর্ণবয়স্ক মানুষের দৈনিক গড়ে ২ গ্রামের কাছাকাছি সোডিয়ামের প্রয়োজন হয়, যা ভালো মানের এক চা-চামচ লবণে থাকে। কেউ যদি লবণের মাত্রা কমাতে গিয়ে দৈনিক এই এক চা-চামচের কম লবণ খান তবে তার শরীরের সোডিয়ামের ঘাতটি দেখা দেবে। আর শরীরে সোডিয়ামের মাত্রা মানুষের আয়ুর ওপরও প্রভাব রাখে।

গবেষণায় অংশ নেওয়া বেশিরভাগ মানুষেই ছিল চীনের। দেখা যায় ওইসব চীনা গড়ে ৬ গ্রামের বেশি লবণ গ্রহণ করে। তবে তাদের মধ্যে হূদরোগের ঝুঁকি খুব একটা দেখা যায়নি।

তবে নতুন এই গবেষণার তথ্য এখনই সাধারণ মানুষের জন্য কোনো পরামর্শ বা নির্দেশনা হিসেবে না নেওয়ার অনুরোধ করেছেন গবেষকরা। সেজন্য এই বিষয়ে আরো কিছু গবেষণার প্রয়োজন। 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads