• বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads
অগ্নিপরীক্ষায় জিতবে ব্রাজিলই : মোনালিসা

মডেল-অভিনেত্রী মোনালিসা

সংরক্ষিত ছবি

শোবিজ

অগ্নিপরীক্ষায় জিতবে ব্রাজিলই : মোনালিসা

  • জিয়াউল জিয়া
  • প্রকাশিত ০৬ জুলাই ২০১৮

শোবিজ জগতের জনপ্রিয় মুখ মডেল-অভিনেত্রী মোজেজা আশরাফ মোনালিসা। মিডিয়ায় তার পথচলা শুরু ১৯৯৭ সালে। ত্বকের রঙ ফর্সাকারী একটি ক্রিমের বিজ্ঞাপন দিয়ে। এরপর আর তাকে পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি। দাপিয়ে বেড়িয়েছেন মডেলিং, নাটক, টেলিফিল্মসহ প্রায় সব প্লাটফরমে। যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমানোয় তার অভিনয় ক্যারিয়ারে কিছুটা ছন্দপতন ঘটেছিল। তার ভক্তরা তাকে ঠিকই খুঁজে ফিরেছে। তাদের টানে, দেশের টানে তিন মাসের জন্য ফিরেছিলেন। আজ ফের পাড়ি জমালেন ‘খুব শিগগিরই আবার ফিরছি’ বলে। কথা হলো তার সঙ্গে। নাটক এবং নানা প্রসঙ্গে কথা বলেছেন তিনি:

প্রশ্ন : এবার ফিরে কী কী কাজ করলেন?
মোনালিসা : মাত্র তিন মাসের ছুটিতে এসেছিলাম। বেশি কাজ করার সুযোগ ছিল না সময় স্বল্পতার কারণে। তিনটি একক নাটকে কাজ করেছি মাত্র।

প্রশ্ন : কেমন লাগল কাজ করে?
মোনালিসা : দারুণ! নতুন-পুরান সবার সঙ্গেই কাজ করলাম। অনুভূতি খুব ভালো। নতুনদের নিয়ে আমি খুবই আশাবাদী। তারা ভালো কাজ করছে। তাদের ওপর ভর করে সুন্দর ভবিষ্যতের স্বপ্ন দেখাই যায়।

প্রশ্ন : প্রবাসে থেকে বাংলাদেশের নাটক বা চলচ্চিত্র দেখেন?
মোনালিসা : চেষ্টা করি। কিন্তু সময় পাই না খুব একটা। খুব আলোচিত কাজগুলো পরে ইউটিউবে দেখার চেষ্টা করি। তবে ঈদের নাটকগুলো দেখি।

প্রশ্ন : নতুনদের মধ্যে কার কার কাজ ভালো লেগেছে?
মোনালিসা : ওই যে বললাম, খুব এটা দেখার সময় পাই না। তারপরেও যতটুকু দেখেছি তাতে সাবিলা, আফরান নিশো, সজল ইরফান, জোভানের অভিনয় ভালো লেগেছে। এছাড়া আরো অনেকের অভিনয়ই ভালো লেগেছে। যাদের নাম এ মুহূর্তে মনে পড়ছে না।

প্রশ্ন : আপনি ঈদের নাটক দেখেন বললেন। ঈদের নাটক নিয়ে অভিযোগের শেষ নেই। ভালো নাটক প্রচার হয় না বলেই মন্তব্য করেন সবাই। আপনার কী মত?
মোনালিসা : ঢালাওভাবে খারাপ বলা ঠিক হবে না। তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এই অভিযোগ সত্যি। দশটা নাটকের মধ্যে আটটা নাটকই বাজে হয়। এক্ষেত্রে আমি চ্যানেলগুলোকে দোষারোপ করব। নাম বেচার দিন শেষ। এখন কাজের সময়। প্রতিযোগিতার যুগ চলছে। চ্যানেলগুলোর উচিত নতুনদের সুযোগ করে দেওয়া। নতুনরা নতুন চিন্তা-ভাবনা নিয়ে আসছে। তাদের কাজে অবশ্যই এ সময়ের গন্ধ থাকবে। ঈদে যে কয়টা কাজ আমার ভালো লেগেছে, তার সবই নতুনদের করা। তাই আমি চাই নতুনদের অগ্রাধিকার দেওয়া হোক। আর বাজেটও বাড়াতে হবে। যে বাজেট দেওয়া হয়, তাতে তেমন ভালো কিছু করা সম্ভব নয়। এখনো দুই দিনের মধ্যে একক নাটকের কাজ শেষ করতে হয়। এর মধ্যে যা হচ্ছে তাকে ভালোই বলতে হবে।

প্রশ্ন : আমাদের নাটকে গল্প নেই। গল্পহীন নাটক দেখতে দেখতে ক্লান্ত দর্শক। একটা ভালো গল্প নেই-এটাও কি বাজেটের অভাবে?
মোনালিসা : এক্ষেত্রে আমি আপনার সঙ্গে একমত। ভালো গল্পের জন্য কম বাজেট প্রতিবন্ধকতা নয়। কিন্তু এখানেও গল্পের চাইতে লেখকের নেম ভ্যালুকে বিচারে আনা হচ্ছে। তাই গল্পে ভ্যারিয়েশন আসছে না। মানুষ তার চেনা জগতের বাইরে লিখতে পারে না। তাই একজন মানুষের কাছ থেকে ক্রমাগত ভালো কিছু আশা করা ভুল। আমি বলব, নতুন রাইটারদের সুযোগ দেওয়া হোক। নাটকের দুর্দশা কেটে যাবে এক নিমিষেই।

30581591_10155656538616491_6932722069265734270_n

প্রশ্ন : আপনার যে সময়ের স্বল্পতা শুনলাম, তাতে তো আপনাকে নিকট ভবিষ্যতে চলচ্চিত্রে দেখতে পাব বলে মনে হচ্ছে না...
মোনালিসা : না, আমি তো ছুটি নিয়ে কাজ করতেই পারি। কিন্তু এই ছুটিটা ভালো কোনো কাজের জন্যে নিতে চাই। যদি অসাধারণ গল্পের কোনো চলচ্চিত্রের অফার পাই তবে সেটা করব। এমনকি সেটা আগামী মাসেও সম্ভব।

প্রশ্ন : চলচ্চিত্রের বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে বলুন...
মোনালিসা : ঘুরে দাঁড়িয়েছে আমাদের চলচ্চিত্র। তবে এই তিন-চারটি ভালো ছবি দিয়ে চলবে না। প্রত্যেক সপ্তাহে ভালো ছবি মুক্তি দিতে হবে। তাহলেই আবার জোয়ার উঠবে। দর্শকরা হলমুখী হবেন।

প্রশ্ন : আমাদের ধারাবাহিকগুলো দর্শক টানতে পারছে না। সব দর্শক আটকে রেখেছে ভারতীয় চ্যানেলগুলো। মুক্তির পথ কী?
মোনালিসা : ভারতীয় নাটকগুলো প্রত্যেক পর্ব এমন একটা জায়গায় শেষ করে যে, দর্শকরা পরের দিন সেটা দেখার জন্য কৌতূহলে থাকেন। আমাদের নাটকে এখনো সেটা দেখা যাচ্ছে না। আগের মতোই সাদামাটা গল্পের নাটকের দর্শক এখন নেই বললেই চলে। ভালো গল্পের টানটান উত্তেজনার ধারাবাহিক চাই। তাহলেই আমাদের দর্শক আমাদের কাছে ফিরবে।

প্রশ্ন : কলকাতার শোবিজে যারা থিয়েটার করে, তারাই টিভি নাটক করে। এরাই আবার চলচ্চিত্রে প্রথম সারির অভিনেতা। আমাদের এখানে ভিন্ন চিত্র কেন?
মোনালিসা : আমরা মূলত স্বার্থপর। শুধু নিজের উপরে ওঠা নিয়েই ভাবি। এতে যদি কারো ক্ষতি করার দরকার হয়, তবে সেটা করতেও দ্বিধাবোধ করি না। কলকাতার লোকজন খুব সহযোগী মনোভাবের। তারা একজন অন্যজনকে টেনে তোলার চেষ্টা করে। তারা একজন আরেকজনকে সাহায্য করেন। থিয়েটারের একজন তার সহকর্মীকে টিভি নাটকে সুযোগ করে দেয়। আবার একজন টিভি নাটকের সহকর্মী সুযোগ করে দিচ্ছে চলচ্চিত্রে কাজ করার জন্যে। তাই এটা সম্ভব হয়েছে।

প্রশ্ন : রাজনীতিতে আসার ইচ্ছে আছে?
মোনালিসা : অবশ্যই আছে। তবে সেটা এখনই নয়। সময় বুঝে রাজনীতিতে যুক্ত হব।

প্রশ্ন : রাজনীতির মাঠে কোন দলের হয়ে নামবেন?
মোনালিসা : এখনো বলতে পারছি না। যখন নামব তখন সময় বুঝে, দেশের প্রতি তাদের কনট্রিবিউশন বুঝে তারপর যেগ দেব।

প্রশ্ন : ফুটবল বিশ্বকাপে প্রিয় দল?
মোনালিসা : অবশ্যই ব্রাজিল।

প্রশ্ন : আজ তো আপনার প্রিয় দলের অগ্নিপরীক্ষা...
মোনালিসা : হুম, খুব টেনশনে আছি খেলাটা নিয়ে। বেলজিয়াম লং পাসে খেলে। এটা একটা বড় ভয়। তবে, অগ্নিপরীক্ষায় শেষ পর্যন্ত ব্রাজিলেরই জয় হবে। তাদের রিদমিক ফুটবলের সামনে কিছুই টিকবে না।

প্রশ্ন : ধন্যবাদ আপনাকে...

মোনালিসা : আপনাকেও অনেক ধন্যবাদ।

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads