• শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads
 শাওমির রেডমি এস২

রেডমি সিরিজের নতুন স্মার্টফোন রেডমি এস২

ছবি : ইন্টারনেট

টেলিযোগাযোগ

স্মার্টফোন রিভিউ

শাওমির রেডমি এস২

  • শাহাদাত হোসেন
  • প্রকাশিত ১২ আগস্ট ২০১৮

দেশের বাজারে শাওমি সম্প্রতি নিয়ে এসেছে রেডমি সিরিজের নতুন স্মার্টফোন রেডমি এস২। দাম এবং ফিচার বিবেচনায় এরই মধ্যে ক্রেতাদের মধ্যেও দারুণ সাড়া ফেলেছে স্মার্টফোনটি। আজকে থাকছে স্মার্টফোনটির রিভিউ-

 

ডিসপ্লে

স্মার্টফোনটিতে থাকছে ৫ দশমিক ৯৯ ইঞ্চি আইপিএস এলসিডি ডিসপ্লে, যার আসপেক্ট রেশিও ১৮:৯। এর ডিসপ্লে রেজ্যুলেশন ৭২০ পিক্সেল বাই ১৪৪০ পিক্সেল, যা স্মার্টফোনটির একটি অন্যতম ড্রব্যাক। কারণ, একই বাজেটের অন্যান্য স্মার্টফোনে বর্তমানে ফুল এইচডি ডিসপ্লে ব্যবহার করা হচ্ছে। এর পিক্সেল ডেনসিটি ২৬৯ পিপিআই। তবে ফুল এইচডি ভিডিও দেখা সম্ভব না হলেও ডিসপ্লে কোয়ালিটি বেশ চলনসই। এর ভিউয়িং অ্যাঙ্গেলও বেশ ভালো। সূর্যের আলোতেও ডিসপ্লে কনটেন্ট দেখার ক্ষেত্রে খুব একটা সমস্যা হয় না। ১০ আঙুল পর্যন্ত মাল্টিটাচ সাপোর্ট করে স্মার্টফোনটি। ডিসপ্লে সুরক্ষায় গরিলা গ্লাস না থাকলেও অনেকটাই স্ক্র্যাচপ্রুফ বলা যেতে পারে।

বিল্ড কোয়ালিটি ও ডিজাইন

ফোনটির ডিজাইন বেশ আকর্ষণীয়। প্লাস্টিক বডির হওয়ায় স্মার্টফোনটি তুলনামূলক হালকা। স্মার্টফোনটিতে একটা ক্লাসিক লুক রয়েছে। তবে ফ্যাবলেট ঘরানার হওয়ায় অনেকের কাছেই এক হাতে ব্যবহার করতে কিছুটা সমস্যা মনে হতে পারে।

এর ফ্রন্ট পার্টের ওপরের অংশে রয়েছে ফ্রন্ট ক্যামেরা, ফ্ল্যাশ লাইট, ইয়ারপিস ও প্রক্সিমিটি সেন্সর। ফোনটির ওপরের দিকে রয়েছে ৩.৫ মিলিমিটার হেডফোন জ্যাক এবং আইআর ব্লাস্টার। নিচের দিকে আছে ইউএসবি পোর্ট ও স্পিকার গ্রিল। ডান পাশে রয়েছে পাওয়ার ও ভলিউম বাটন এবং বাম দিকে আছে সিমকার্ড ট্রে। পেছনের দিকে রয়েছে ডুয়েল ক্যামেরা সেটআপ ও ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। এতে প্রিমিয়াম ফিল পাওয়া না গেলেও শাওমির অন্য হাইএন্ড স্মার্টফোনের তুলনায় এর একটি ভালো দিক হলো এতে হাইব্রিড সিম স্লট ব্যবহার করা হয়নি। বরং এক সঙ্গেই দুটি সিমকার্ড ও মেমরি কার্ড ব্যবহারের সুযোগ রাখা হয়েছে রেডমি এস২ স্মার্টফোনে।

প্রসেসর ও মেমরি

ফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৬২৫ অক্টাকোর প্রসেসর। এর আগে রেডমি ৫ প্লাস এবং এমআই এ১ মডেলের স্মার্টফোন দুটিতেও একই প্রসেসর ব্যবহার করেছিল শাওমি। গ্রাফিক্স পারফরম্যান্সের জন্য এতে ব্যবহার করা হয়েছে অ্যাড্রেনো ৫০৬ জিপিইউ।

স্মার্টফোনটি ৩ গিগাবাইট র্যাম ও ৩২ গিগাবাইট রম এবং ৪ গিগাবাইট র্যাম ও ৬৪ গিগাবাইট রমের দুটি আলাদা ভ্যারিয়েন্টে পাওয়া যাবে।

ক্যামেরা

ফোনটিতে আছে ১২ মেগাপিক্সেল ও ৫ মেগাপিক্সেল সেন্সরের দুটি রিয়ার ক্যামেরা এবং ১২ মেগাপিক্সেল সেন্সরের অ্যাপারচার এফ/২.২। ৫ মেগাপিক্সেল সেন্সরটি মূলত পোর্ট্রেট ছবির ডেপথ অব ফিল্ড ঠিক করার জন্য কাজ করে। এছাড়া আছে ১৬ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা।

ফোনটির ক্যামেরায় দিনের আলোতে বেশ ভালো ছবি পাওয়া সম্ভব এবং এসব ছবির কালার রিপ্রেজেন্টেশনও বেশ সন্তোষজনক। এর অটোফোকাস ফিচারটিও বেশ দ্রুতই অবজেক্ট শনাক্ত করতে পারে। অন্যদিকে ফ্রন্ট ক্যামেরায় পাওয়া ছবিও মুগ্ধ হওয়ার মতো। তবে কিছু ক্ষেত্রে ব্যাকলাইটিংয়ের কারণে হোয়াইট ব্যালেন্সে সমস্যা দেখা গেছে।

দিনের আলোতে ভালো ছবি পাওয়া গেলেও অল্প আলোতে তোলা ছবি সন্তোষজনক নয়। অ্যাপারচার কম থাকাই এর অন্যতম কারণ।

অপারেটিং সিস্টেম

ফোনটির অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে অ্যান্ড্রয়েড ৮.১ ভিত্তিক এমআইইউআই ৯.৫। স্টক অ্যান্ড্রয়েডের তুলনায় বেশ কিছু বাড়তি ফিচার পাওয়া যাবে এমআইইউআই লেয়ারে।

ব্যাটারি

রেডমি সিরিজের এ স্মার্টফোনে আছে ৩০৮০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি। স্ন্যাপড্রাগন ৬২৫ প্রসেসর এবং সেই সঙ্গে লো-রেজ্যুলেশন ডিসপ্লের কারণে একবার চার্জ দিলে অনায়াসেই একদিন পার করে দেওয়া যাবে। এতে কুইক চার্জিং প্রযুক্তি নেই। একবার চার্জ দেওয়ার ক্ষেত্রে সময় প্রয়োজন হয় দুই ঘণ্টার কিছু বেশি।

দাম

স্মার্টফোনটির ৩ গিগাবাইট ভ্যারিয়েন্টের দাম পড়বে ১৪ হাজার ৯৯৯ টাকা এবং ৪ গিগাবাইট ১৭ হাজার ৯৯৯ টাকা।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads