• বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮, ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৪
ads
জলবায়ু খাতে অর্থায়ন ৬০ ভাগ বাড়িয়েছে বিশ্বব্যাংক

জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবেলায় ২০১৭-১৮ অর্থবছরে অর্থায়নের প্রতিশ্রুতি ৬০ শতাংশ বাড়িয়েছে বহুজাতিক দাতা সংস্থা বিশ্বব্যাংক

ছবি: সংরক্ষিত

বাণিজ্য

জলবায়ু খাতে অর্থায়ন ৬০ ভাগ বাড়িয়েছে বিশ্বব্যাংক

  • জাহিদুল ইসলাম
  • প্রকাশিত ২২ জুলাই ২০১৮

জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবেলায় ২০১৭-১৮ অর্থবছরে অর্থায়নের প্রতিশ্রুতি ৬০ শতাংশ বাড়িয়েছে বহুজাতিক দাতা সংস্থা বিশ্বব্যাংক। ২০১৭ সালের ১ জুলাই থেকে চলতি বছরের ৩০ জুন পর্যন্ত জলবায়ু খাতে ২ হাজার ৫০ কোটি ডলার অর্থায়নের আনুষ্ঠানিক প্রতিশ্রুতি দিয়েছে সংস্থাটি। আগের অর্থবছর সংস্থাটি চার অঙ্গপ্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে জলবায়ু খাতে ১ হাজার ২৮০ কোটি ডলার সহায়তার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। এ হিসাবে এক বছরে জলবায়ু খাতে বিশ্বব্যাংকের অর্থায়ন বেড়েছে ৭৭০ কোটি ডলার। গতকাল শনিবার প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানিয়েছে বিশ্বব্যাংক।

সদর দফতর ওয়াশিংটন থেকে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিশ্বব্যাংক জানিয়েছে, জলবায়ু সহনশীল খাতে প্রতিশ্রুত অর্থ ছাড় হলে নবায়নযোগ্য জ্বালানির মাধ্যমে বিদ্যুতের উৎপাদন ক্ষমতা ১৮ হাজার মেগাওয়াট বাড়বে। পরিষ্কার জ্বালানি খাতে ১ হাজার কোটি ডলার অর্থায়ন করা হচ্ছে। একই সময়ে ২০ দেশে জলবায়ু সহনশীল ২২টি বিনিয়োগ পরিকল্পনা প্রণয়ন করা হয়েছে। জলবায়ু সহনশীল পরিবহন ব্যবস্থার উন্নয়নে বিনিয়োগ করা হচ্ছে ৭৮ কোটি ৪০ লাখ ডলার। পাশাপাশি ১৮টি দেশে ৩ কোটি ৮০ লাখ মানুষকে জলবায়ু সংক্রান্ত নির্ভরযোগ্য পূর্বাভাসের আওতায় আনা হয়েছে।

জলবায়ু খাতে বিশ্বব্যাংকের অর্থায়ন সংস্থাটির মোট বিনিয়োগের ৩২ দশমিক ১০ শতাংশে উন্নীত হয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে প্রতিবেদনে। ২০১৬ সালে প্রণয়ন করা বিশ্বব্যাংকের জলবায়ু পরিবর্তন কর্মপরিকল্পনায় ২০২০ সালের মধ্যে জলবায়ুতে অর্থায়ন মোট বিনিয়োগের ২৮ শতাংশে উন্নীত করার লক্ষ্য রয়েছে। ২০১৬-১৭ অর্থবছর জলবায়ুতে বিশ্বব্যাংকের অর্থায়ন ছিল মোট বিনিয়োগের ২২ শতাংশ। এর আগের দুই অর্থবছর মোট বিনিয়োগের ১৮ শতাংশ করে জলবায়ু খাতে ব্যয় করেছিল সংস্থাটি।

এ বিষয়ে বিশ্বব্যাংকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ক্রিস্টালিনা জর্জিভা বলেন, শুধু কাগজে-কলমেই আমরা লক্ষ্য অতিক্রম করিনি। সদস্য দেশগুলোর সঙ্গে কাজ করার ক্ষেত্রে আমরা নতুন পথের সন্ধান পেয়েছি। নবায়নযোগ্য জ্বালানিতে কার্যকর পরিবর্তন দৃশ্যমান হয়েছে। এ বিষয়টি জলবায়ু পরিবর্তনের সঙ্গে সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ মানুষের যুদ্ধের শক্তি বাড়িয়ে দিচ্ছে।

বিশ্বব্যাংকের সহজ শর্তে ঋণদান প্রতিষ্ঠান আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থা (আইডিএ) ও তুলনামূলক ধনী দেশগুলোয় ঋণদানের প্রতিষ্ঠান আইবিআরডি গত অর্থবছর জলবায়ু খাতে ১ হাজার ৫৭০ কোটি ডলার ছাড় করেছে। আগের অর্থবছর এই দুই প্রতিষ্ঠান ছাড় করেছিল ৯২০ কোটি ডলার। এক বছরে দুই সংস্থার অর্থায়ন    ৭০ দশমিক ৬৫ শতাংশ বেড়েছে।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালে জলবায়ু খাতে বহুজাতিক দাতা ও উন্নয়ন সংস্থাগুলোর অর্থ বরাদ্দ প্রায় ৩০ শতাংশ বেড়েছে বলে সম্প্রতি এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে বিশ্বব্যাংক। এতে বলা হয়েছে, গত বছর এ খাতে ৩ হাজার ৫২০ কোটি ডলার ছাড় করেছে ছয় সংস্থা। আগের বছর এ খাতে বরাদ্দ ছিল ২ হাজার ৭৪০ কোটি ডলার। সাত বছরের মধ্যে ২০১৭ সালে জলবায়ু খাতে সর্বোচ্চ অর্থ ছাড় করা হয়েছে। এ সব সংস্থা থেকে তিন বছরে বাংলাদেশ জলবায়ু খাতে ২৪১ কোটি ৪০ লাখ ডলার পেয়েছে বলেও প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছিল।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads