• বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১১ আশ্বিন ১৪২৫
ads
স্পাইডারম্যান গাসসামা এখন ফ্রান্সের হিরো

স্পাইডারম্যান গাসসামা এখন ফ্রান্সের হিরো

ছবি : ইন্টারনেট

বিদেশ

স্পাইডারম্যান গাসসামা এখন ফ্রান্সের হিরো

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ২৯ মে ২০১৮

প্যারিসে বহুতল ভবনের ব্যালকনিতে ঝুলন্ত এক শিশুকে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বাঁচিয়ে রীতিমতো নায়ক বনে গেছেন মালির এক শরণার্থী যুবক। ঝড়ের গতিতে নিচ থেকে একের পর এক ব্যালকনি টপকে উপরে উঠে শিশুটিকে উদ্ধার করেন তিনি। এজন্য প্যারিসের মেয়র তাকে ‘স্পাইডারম্যান’ বলে অভিহিত করেছেন। শুধু তাই নয়, এই সাহসী কর্মকাণ্ডের জন্য মাহমুদু গাসসামা নামের ওই যুবক পাচ্ছেন ফ্রান্সের নাগরিকত্ব ও ফায়ার ব্রিগেডে চাকরি। খবর বিবিসি।

প্যারিসের মেয়র আন্নে হিদালগো এক টুইট বার্তায় তাকে ‘এইটিনথের স্পাইডারম্যান’ বলে অভিহিত করেন। শহরের যে অংশে এই ঘটনাটি ঘটেছে তা ‘এইটিনথ’ নামে পরিচিত। জানা যায়, গত শনিবার রাত ৮টা নাগাদ প্যারিসের উত্তরাঞ্চলীয় এলাকার একটি ভবনের পাঁচতলার ব্যালকনিতে ঝুলছিল একটি শিশু। এ সময় ভবনটির নিচে থাকা ২২ বছর বয়সী গাসসামা শিশুটিকে বাঁচাতে খালি হাতে একের পর এক ব্যালকনি টপকে পাঁচতলায় উঠে যান। একই সময় পাঁচতলায় পাশের ফ্ল্যাটের অপর এক ব্যক্তি শিশুটির হাত ধরে রাখার চেষ্টা করছিলেন। গাসসামা ব্যালকনিতে পৌঁছে শিশুটির আরেক হাত ধরে ফেলেন এবং নিরাপদে তাকে তুলে নেন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশিত ভিডিওতে দেখা যায়, ভবনটির নিচে থাকা জনগণ ওই সময় গাসসামার এই সাহসী ও মহৎ কাজের জন্য উল্লাস করছিল।

ঘটনার সময় শিশুটির বাবা-মা বাড়িতে ছিলেন না। কেন শিশুটিকে বাড়িতে একা রেখে তারা বাইরে গেলেন তা জানতে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পুলিশ। ঘটনার সময় শিশুটির মা প্যারিসের বাইরে ছিলেন। গতকাল সোমবার মাহমুদু গাসসামাকে এলিজি প্রাসাদে ডেকে ধন্যবাদ জানান প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাখোঁ। প্রেসিডেন্ট সাহসিকতার জন্য তাকে পদক দেন এবং ফায়ার ব্রিগেডে কাজ করার প্রস্তাব দেন। গাসসামা প্রেসিডেন্টকে বলেন, ‘আমি ভাবার জন্য অতটা সময় পাইনি। শিশুটি ঝুলছিল দেখে রাস্তা অতিক্রম করে আমি উপরে উঠে গেলাম এবং তাকে বাঁচালাম। সৃষ্টিকর্তা আমাকে সাহায্য করেছেন।’ উল্লেখ্য, গত বছরই গাসসামা শরণার্থী হিসেবে ভূমধ্যসাগরের বিপদসঙ্কুল পথ পাড়ি দিয়ে ইতালি হয়ে ফ্রান্সে আসেন।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads