• মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads
একত্রে কাজ করতে সম্মত ট্রাম্প-পুতিন

ফিনল্যান্ডের হেলসিঙ্কির প্রেসিডেন্ট ভবনে ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং ভ্লাদিমির পুতিন আলোচনায় বসেন

ছবি : ইন্টারনেট

বিদেশ

হেলসিঙ্কি বৈঠক

একত্রে কাজ করতে সম্মত ট্রাম্প-পুতিন

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ১৭ জুলাই ২০১৮

বিশ্বের অন্যতম দুই পরাশক্তি যুক্তরাষ্ট্র এবং রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পর্যায়ে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনেক জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে গতকাল সোমবার ফিনল্যান্ডের হেলসিঙ্কির প্রেসিডেন্ট ভবনে ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং ভ্লাদিমির পুতিন আলোচনায় বসেন। গার্ডিয়ানের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এই বৈঠকের এক দিন আগে যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগ নির্বাচনে হস্তক্ষেপের কারণে রাশিয়ার ১২ গোয়েন্দা কর্মকর্তাকে অভিযুক্ত করেছে।

বৈঠক-পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে পুতিন ইউক্রেন ইস্যুতে বলেন, ‘ইউক্রেনের নেতাদের নিরপেক্ষ ভূমিকা রাখতে যুক্তরাষ্ট্র আরো ভূমিকা পালন করতে পারে। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এবং আমি একত্রে কাজ করার ক্ষেত্রে সম্মত হয়েছি। আজ (সোমবার) যুক্তরাষ্ট্র এবং রাশিয়া উভয়ই নতুন সব চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করছে। এই বৈঠক দুই পক্ষের মধ্যে সহনশীল মাত্রায় বিশ্বাস স্থাপনের প্রথম পদক্ষেপ।’

যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনে রুশ হস্তক্ষেপ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমি আগেও যা বলেছি তা আবারো বলতে হচ্ছে। রাশিয়া কখনো যুক্তরাষ্ট্রের অভ্যন্তরীণ রাজনীতি ও নির্বাচনে হস্তক্ষেপ করার পরিকল্পনা করেনি। এমন কোনো বিষয় সামনে এলে তা নিয়ে আমরা আলোচনায় আগ্রহী।’

অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমাদের মধ্যে খোলাখুলি অনেক বিষয় নিয়ে সংলাপ হয়েছে। শীতলযুদ্ধের সময় অতিক্রম করে এসেছি আমরা। রাশিয়া এবং যুক্তরাষ্ট্রের শক্তিশালী সংলাপ চালিয়ে যাওয়ার সামর্থ্য রয়েছে। উত্তর কোরিয়ার পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ, সন্ত্রাসবাদ এবং অন্যান্য বিষয় নিয়ে আমাদের মধ্যে আলোচনা হয়েছে। সিরিয়ায় লক্ষাধিক মানুষের জীবন বাঁচিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়া। আমি নিশ্চিত ভবিষ্যতে আমাদের মধ্যে আরো বৈঠক হবে।’

সোমবার স্থানীয় সময় দুপুর ১টায় বৈঠক অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু দুই নেতাই নির্ধারিত সময়ের পর বৈঠকস্থলে পৌঁছলে বৈঠক শুরু হতে এক ঘণ্টা দেরি হয়। দুই নেতার মধ্যে আধা ঘণ্টা রুদ্ধদ্বার বৈঠক হওয়ার কথা থাকলেও প্রায় দুই ঘণ্টার বেশি সময় ধরে বৈঠক চলে। এ সময় তাদের মধ্যে কী নিয়ে আলোচনা হয় তা জানা যায়নি। আলোচনা শেষে ট্রাম্প সাংবাদিকদের বলেন, আমার মনে হয় এটা সকলের জন্যই শুভ সূচনা।

জানা যায়, বৈঠকে বসার আগে ট্রাম্প-পুতিন ৩ সেকেন্ডের জন্য পরস্পরের সঙ্গে হাত মিলিয়েছিলেন। চীন, সামরিক সক্ষমতা, ক্ষেপণাস্ত্র এবং বাণিজ্য ইস্যুতে ট্রাম্প কথা বলতে আগ্রহ দেখালেও দুই দেশের মধ্যে যেসব ইস্যুতে দ্বন্দ্ব রয়েছে তা নিয়ে কোনো কথা বলেননি তিনি।

বৈঠকের শুরুতে ট্রাম্প পুতিনকে উদ্দেশ করে বলেন, ‘আমি সত্যিই মনে করি বিশ্ব আমাদের একত্রিত দেখতে চায়। আমরা পরমাণু শক্তিধর দুই দেশ।’

বৈঠকে ট্রাম্পের সঙ্গে আছেন রাশিয়ায় নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত জন হান্টসম্যান, পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও, হোয়াইট হাউজ চিফ অব স্টাফ জন কেলি, জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন এবং রাশিয়া বিষয়ক উপদেষ্টা ফিওনা হিল। অন্যদিকে পুতিনের সঙ্গে আছেন তার মুখপাত্র দিমিত্রি পেত্রভ এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ ছাড়াও আরো চারজন।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads