• রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads
ইমরানের বিরুদ্ধে একজোট বিরোধীরা

তেহরিক-ই-ইনসাফের বিরুদ্ধে সর্বদলীয় জোট গড়ে তুলেছে মুসলিম লিগ ও পিপলস পার্টিসহ অন্য বিরোধীরা

ছবি : ইন্টারনেট

বিদেশ

ইমরানের বিরুদ্ধে একজোট বিরোধীরা

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ০৪ আগস্ট ২০১৮

পাকিস্তানে ইমরান খানের দল তেহরিক-ই-ইনসাফের বিরুদ্ধে সর্বদলীয় জোট গড়ে তুলেছে মুসলিম লিগ ও পিপলস পার্টিসহ অন্য বিরোধীরা। সংসদে প্রধানমন্ত্রীর পদে অনাস্থা এনে ভোট আয়োজনের কথা জানিয়েছে। এ ছাড়া, স্পিকার, ডেপুটি স্পিকারের পদের জন্য জোটের পক্ষ থেকে লড়ার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।

গতকাল শুক্রবার এনডিটিভি খবরে বলা হয়, পাকিস্তানের দুটি অন্যতম প্রধান রাজনৈতিক দল পিএমএল (নওয়াজ) ও পিপিপি হাত মিলিয়েছে। তাদের সঙ্গে যোগ দিয়েছে বেশ কয়েকটি ছোট দলও। এই দলগুলোর জোটের নাম দেওয়া হয়েছে ‘অল পার্টি কনফারেন্স’। বিরোধী জোটই ভোটাভুটিতে অংশ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী পদে ইমরানের পথের কাঁটা হতে চলেছে।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী পদে ইমরান খানের অভিষেক অনেকটা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) প্রধান এবার পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন, গত বৃহস্পতিবার পর্যন্ত এটা এক রকম নিশ্চিত ছিল। কিন্তু, প্রধান বিরোধীরা গত বৃহস্পতিবার জোট বাঁধার ঘোষণা দিতেই পরিস্থিতি পরিবর্তন হতে শুরু করেছে।

পাক ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলির ২৭২টি আসনের মধ্যে ১১৬টিতে জয়লাভ করেছে ইমরান খানের পিটিআই। অর্থাৎ ম্যাজিক ফিগার ১৩৭ ছুঁতে গেলে পিটিআই-এর আরো ২১টি আসন প্রয়োজন। প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছিল এবং পিটিআই বার বার দাবিও করছিল, ছোট দল ও নির্দলদের সমর্থন জোগাড় করতে খুব একটা সমস্যা হবে না তাদের। কিন্তু, গত বৃহস্পতিবার বিরোধীরা জোট বাঁধার পরই সমীকরণ বদলাতে শুরু করেছে বলে জানা যাচ্ছে।

বিরোধী দলগুলোর দাবি ২৫ জুলাইয়ের সাধারণ নির্বাচনে ব্যাপক কারচুপি হয়েছে। এ ক্ষেত্রে ইমরানের দলকে পেছন থেকে সাহায্য করেছে দেশটির সেনাবাহিনী। এ বিষয়ে পিএমএলের মুখপাত্র তথা নওয়াজ শরিফের মেয়ে মরিয়ম ওরঙ্গজেবের দাবি, কারচুপি করে নির্বাচনে জিতেছে পিটিআই। সব রাজনৈতিক দল লড়াই করার সমান সুযোগ পায়নি। বিরোধী জোট অর্থাৎ ‘অল পার্টি কনফারেন্স’-এর কাছে খুব বেশি সংখ্যা নেই বলে প্রাথমিকভাবে মনে করা হয়েছিল। ১১ আগস্ট প্রধানমন্ত্রী পদে ইমরানের শপথ গ্রহণের দিনও ঠিক করে ফেলা হয়েছিল। কিন্তু এরপরই হঠাৎ করে হিসাব বদলাতে শুরু করেছে।

তবে পাকিস্তান রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের একাংশ মনে করছে, বিরোধী জোট ইমরানের বিরুদ্ধে একসঙ্গে মাঠে নামলেও শেষ পর্যন্ত সামান্য ব্যবধানে জিতে যেতে পারেন ইমরান। কিন্তু, সেক্ষেত্রে ইমরান সরকারকে নীতি নির্ধারণে অনেক নমনীয় ভাব নিয়ে চলতে হবে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads