• বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১১ আশ্বিন ১৪২৫
ads
পুরো পরিবারকে বাঁচাল কুকুর

মোহানান পি’র পুরো পরিবারকে বাঁচায় তাদের পালিত কুকুরটি

সংরক্ষিত ছবি

বিদেশ

পুরো পরিবারকে বাঁচাল কুকুর

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ১৩ আগস্ট ২০১৮

ইদুক্কি নদীর উপচেপড়া পানি ও বন্যায় কেরালায় ৩৭ জনের মৃত্যু হয়েছে এবং ৩৫ হাজার মানুষ স্থান নিয়েছেন আশ্রয়কেন্দ্রে। এই ভূমিধসেই ইদুক্কি জেলার কানিজকুজি গ্রামের মোহানান পি’র পুরো পরিবারকে বাঁচায় তাদের পালিত কুকুরটি। 

মোহানান পি বলেন, গত বৃহস্পতিবার আনুমানিক ৩টার দিকে তাদের রকি নামের কুকুরটা জোরে জোরে ডাকতে থাকে। প্রতিদিনই ডাকে দেখে শুরুতে আমরা অতটা গ্রাহ্য করিনি। কিন্তু মিনিটখানেক পরই রকির ডাক জোরে হতে থাকে। একপর্যায়ে তা আর্তনাদে পৌঁছায়।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভিকে মোহানান বলেন, আর্তনাদটি আমার কাছে অস্বাভাবিক ঠেকে। তখন আমাদের মনে হয়েছিল খারাপ কিছু একটা ঘটেছে। আমি তখন বাইরে বের হই দেখার জন্য। রকিকে দেখতে বাইরে বের হওয়ার পর আমরা দুর্যোগ পরিস্থিতি দেখতে পাই। ভূমিধসে তাদের ঘর চাপা পড়ার একেবারে শেষ মুহূর্তে তারা বাড়ি সরে যান। রকি ও পরিবারটি এখন সরকারিভাবে পরিচালিত ত্রাণশিবিরে অবস্থান করছে।

ইদুক্কি কানজিকুজি গ্রামেই ১২টি ত্রাণশিবির চালু করা হয়েছে। এখানে একটি শিবিরেই অবস্থান করছে ১২৮টির মতো পরিবার। কেরালার মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ান বন্যায় নিহতদের ও গৃহহীন পরিবারের জন্য ৪ লাখ রুপি করে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। আর যারা স্বজন ও বাড়ি উভয়ই হারিয়েছেন তাদের ১০ লাখ রুপি দেওয়া হবে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads