• মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads

অ্যাথলেটিকস

বোল্টের অবসরের সিদ্ধান্ত প্রশ্নবিদ্ধ!

  • স্পোর্টস ডেস্ক
  • প্রকাশিত ১৬ এপ্রিল ২০১৮

কমনওয়েলথ গেমসের প্রায় শেষের দিকে অস্ট্রেলিয়ার গোল্ড কোস্ট শহরে পা রাখেন বিশ্বের দ্রুততম মানব উসাইন বোল্ট। গত বৃহস্পতিবার থেকেই তিনি মিশে যান গেমসের নানা আয়োজনের সঙ্গে। গেমস শেষ হয়েছে গতকাল রোববার রাতে। গোল্ড কোস্টে আসার পর থেকেই তাকে ঘিরে চলে নানা আয়োজন। অনেক ইভেন্টের পুরস্কার বিতরণীতে দেখা গেছে এই জ্যামাইকানকে। তবে এবার জ্যামাইকার ব্যর্থতায় তার অবসর গ্রহণ নিয়ে উঠেছে বিভিন্ন প্রশ্ন।

এবার কমনওয়েলথ গেমসে মহিলাদের ৪–১০০ মিটার রিলে স্প্রিন্টে রৌপ্যপদক লাভ করে জ্যামাইকা। তারা হেরে যায় ইংল্যান্ডের কাছে। পুরুষদের ৪–১০০ মিটার রিলে স্প্রিন্টে ব্রোঞ্জপদক পায় বোল্টের দেশ। সেখানে ইংল্যান্ড স্বর্ণ এবং দক্ষিণ আফ্রিকা রৌপ্যপদক জয় করে। এসব কারণেই বোল্টের অবসর নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

বোল্ট বরাবরই দারুণ প্রাণবন্ত অ্যাথলেট। দৌড় শেষে তার উদযাপনের স্টাইল তো রীতিমতো জগিবখ্যাত। গোল্ড কোস্টও দারুণ মেতে ছিল তাকে নিয়ে। বোল্ট অন্যদের চেয়ে একটু যেন আলাদা। ব্যক্তি হিসেবে তিনি অনেকটাই দুরন্ত প্রকৃতির। যেখানেই যান সবাইকে মাতিয়ে রাখেন। ২০০৯ সালে বার্লিনে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে ৯.৫৮ সেকেন্ড সময় নিয়ে ১০০ মিটার স্প্রিন্টে বিশ্বরেকর্ড গড়েন বোল্ট। এখনো সেই রেকর্ড ভাঙতে পারেনি কেউ। গত বছর অবসর নিয়েছেন বোল্ট। তারপর তিনি অবসরের সঙ্গী হিসেবে বেছে নিয়েছেন ফুটবলকে।

অবসরের পর বোল্ট এই প্রথম কোনো আন্তর্জাতিক ক্রীড়া আসরে প্রতিযোগী না হয়েও অংশ নিয়েছেন। দর্শকের সারিতে বসে গেমস উপভোগের আনন্দ কেমন সেটা জানাতে গিয়ে বোল্ট বললেন, দুর্দান্ত। গোল্ড কোস্টে নানা অনুষ্ঠানে যোগ দিতে হয়েছে বোল্টকে। তবে সবার আগে ছবি তুলেছেন গেমসের মাসকট বরোবির সঙ্গে। বোল্টকে অনায়াসে বলা যায়, রেকর্ডের বরপুত্র। ১৯.১৯ সেকেন্ড নিয়ে ২০০ মিটার স্প্রিন্টে এবং ৩৭.০৪ সেকেন্ড নিয়ে ৪–১০০ মিটারেও বিশ্বরেকর্ডের অধিকারী তিনি।

গোল্ড কোস্টে সাংবাদিকদের নানা প্রশ্নের জবাব দেন বোল্ট। কথা বলেন, নিজের জীবনের অতীত, বতর্মান ও ভবিষ্যৎ নিয়ে। অনেক অনেক স্মৃতিচারণ আর নানা অভিজ্ঞতার কথাও ভাগাভাগি করেন সাংবাদিকদের সঙ্গে। জানান, এই মুহূর্তে তার প্রাণের খেলা ফুটবল। বিশ্বকাপ দেখতে রাশিয়া যাচ্ছেন কি না সে বিষয়ে অবশ্য নিশ্চিত করেননি।

ট্র্যাক অ্যান্ড ফিল্ডে গতির লড়াইয়ে তার রেকর্ড কখনো ভাঙবে কি না- এমন প্রশ্নে বোল্ট হাসতে হাসতে বলেন, ‘রেকর্ড তো ভাঙার জন্যই গড়া হয়। আর আমার তো মনে হয়, কেউ না কেউ অচিরেই আমার রেকর্ডগুলো ঠিক ভেঙে ফেলবে।’

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads