• মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর ২০১৮, ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৪
ads
১০০ মিটারে হাসানের চমক

মেজবাহকে টপকে এবার বাজিমাত করেছেন বিকেএসপির হাসান মিয়া

সংরক্ষিত ছবি

অ্যাথলেটিকস

১০০ মিটারে হাসানের চমক

দ্রুততম মানবী শিরিন আক্তার

  • স্পোর্টস রিপোর্টার
  • প্রকাশিত ২৮ জুলাই ২০১৮

ট্র্যাকে গত সাতটি বছর ধরে সফলতা দেখিয়ে আসছেন নৌবাহিনীর স্প্রিন্টার মেজবাদ উদ্দিন। ট্র্যাকে একক আধিপত্য বিস্তার করা এ অ্যাথলেটের সামনেও কেউ ভিড়তে পারতেন না। প্রতিবছরই সেরার মুকুট জয় করে ট্র্যাকে নিজেকে ‘মুকুটহীন সম্রাটে’ পরিণত করেছিলেন। অবশেষে মেজবাহকে টপকে এবার বাজিমাত করেছেন বিকেএসপির হাসান মিয়া। গতকাল সামার অ্যাথলেটিক্সের ১৪তম আসরে তরুণ এ স্প্রিন্টার দ্রুততম মানব নির্বাচিত হন। তিনি সময় নেন ১০.৮০ সেকেন্ড। মেজবাহ মুকুট হারান মাত্র দশমিক ১০ সেকেন্ড সময়ের জন্য। এদিকে দ্রুততম মানবী হিসেবে শিরিন আক্তারের মুকুট কেড়ে নিতে পারেননি কেউ। ১২.২০ সেকেন্ড সময় নিয়ে সেরা হয়েছেন নৌবাহিনীর এ অ্যাথলেট। মাত্র দশমিক ১০ সেকেন্ড সময়ের জন্য মুকুট জিততে পারেননি সোহাগী আক্তার।

অ্যাথলেটিক্সের সবচেয়ে আকর্ষণীয় ইভেন্ট হচ্ছে ১০০ মিটার স্প্রিন্ট। নান্দনিক এ ইভেন্টটি প্রতিবছর প্রতিযোগিতার শেষ দিন অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে। কিন্তু এবার প্রথম দিনই ইভেন্টটির খেলার সূচি ঘোষণা করেন আয়োজকরা। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে সন্ধ্যা ৬টায় শুরু হয় ১০০ মিটার স্প্রিন্টে সেরা হওয়ার লড়াই। ফিনিশিং লাইন টাচ করার পরও হাসান মিয়ার ঘোর যেনো কাটছিল না। নিজেই বিশ্বাস করতে পারছিলেন না। ঘোষক যখন মাইকে হাসান মিয়ার নাম ঘোষণা করছিলেন ‘দ্রুততম মানব’ হিসেবে, তখন তিনি চোখ মুছছিলেন। বলেন, ‘আজকে এ জায়গাটি স্পর্শ করতে আমাকে অনেক লড়াই করতে হয়েছে। অনেক পরিশ্রম করতে হয়েছে। আমি আন্তরিকভাবে কৃতজ্ঞ আমার বিকেএসপির শিক্ষকদের কাছে। যারা এ পর্যন্ত আসতে আমাকে সহযোগিতা করেছেন। আমার এ পর্যন্ত আসার পেছনে বাবা-মায়ের অবদানও অনেক।’ মেজবাহকে পেছনে ফেলে নিজের মাথায় সেরার মুকুট পরাটাকে দেখছেন সফলতার প্রথম ধাপ হিসেবে, ‘এটা আমার শুরু। আমাকে আরো অনেকদূর এগিয়ে যেতে হবে। ঠিকমতো অনুশীলন ও প্রয়োজনীয় সহযোগিতা পেলে আমরাও একদিন বিদেশের মাটিতে দেশের মুখ উজ্জ্বল করতে পারব।’

দুই দিনব্যাপী এই প্রতিযোগিতায় গতকাল প্রথম দিন সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা পর্যন্ত ১২টি ইভেন্টের খেলা শেষ হয়েছে। পাঁচটি সোনা, চারটি রুপা, নয়টি ব্রোঞ্জসহ মোট ১৮টি পদক নিয়ে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী পদক তালিকার শীর্ষে আছে। চারটি সোনা, সাতটি রুপা, তিনটি ব্রোঞ্জসহ মোট ১৪টি পদক নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে বাংলাদেশ নৌবাহিনী এবং দুটি সোনা নিয়ে তৃতীয় স্থানে আছে বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (বিকেএসপি)।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads