• মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯, ৫ ভাদ্র ১৪২৫
ads

বাংলাদেশ

বিমান বিধ্বস্ত

আহতদের চিকিৎসার খরচ দেবে ইউএস-বাংলা

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ১৩ মার্চ ২০১৮

নেপালে বিমান বিধ্বস্তের ঘটনায় আহতদের চিকিৎসার সব খরচ ইউএস-বাংলা বহন করবে। মঙ্গলবার গণমাধ্যমকে দেওয়া এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানান প্রতিষ্ঠানটির জনসংযোগ বিভাগের মহাব্যবস্থাপক কামরুল ইসলাম।

কামরুল ইসলাম বলেন, যাত্রীদের ক্ষতিপূরণ দেওয়ার বিষয়ে ইউএস-বাংলা সচেষ্ট আছে। প্রত্যেক যাত্রীর জন্য বিমাসুবিধা নিশ্চিত করা ছিল। তবে বিমার ক্ষতিপূরণ পাওয়ার কিছু প্রক্রিয়াগত বিষয় আছে, সে বিষয়ে এখনই কিছু বলা সম্ভব নয়।

কামরুল ইসলাম বলেন, নিহতদের মরদেহ যথাযথ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে তারা স্বজনদের হাতে তুলে দেবেন। আর নেপালের বিভিন্ন হাসপাতালে যারা চিকিৎসাধীন রয়েছেন, তাদের চিকিৎসার ব্যয়ভার বহন করার জন্য ইউএস বাংলা প্রস্তুত আছে।

নেপালের কাঠমান্ডুতে গতকাল দুপুরে বিধ্বস্ত হওয়া ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনসের বিমানে  ৬৭ জন যাত্রী ও ৪ জন ক্রু ছিলেন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ৫১ জন নিহত হয়েছেন। আর আহত হয়ে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি আছেন ২০ জন।

এদিকে বিধ্বস্ত হওয়ার ঘটনায় ফ্লাইট ক্যাপ্টেন আবিদ সুলতানের দিক থেকে কোনো ভুলভ্রান্তি ছিল না বলেই মনে করছে ইউএস বাংলা। কামরুল ইসলাম বলেন, আমাদের মনে হচ্ছে.. ক্যাপ্টেনের কোনো প্রবলেম আমরা আসলে খুঁজে পাইনি। ইউএস-বাংলার ড্যাশ-৮ কিউ৪০০ মডেলের বিমানে তিনি ১৭০০ ঘণ্টা ফ্লাই করেছেন। বাংলাদেশের এভিয়েশনে ৫০০০ ঘণ্টার উপরে কাজ করেছেন। কাঠমান্ডু এয়ারফিল্ডে শতাধিক ল্যান্ডিং ওনার আছে। এয়ারফিল্ড, এয়ারক্রাফট ওনার জন্য নতুন কিছু না। আমাদের মনে হয় না, এখানে ক্যাপ্টেনের কোনো ভুলভ্রান্তি আছে।

তবে ত্রিভুবন বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ বলেছে, যে দিক দিয়ে বিমানটির রানওয়েতে নামার কথা ছিল, পাইলট নেমেছেন তার উল্টো দিক দিয়ে।

নেপালি কর্তৃপক্ষ ইতোমধ্যে বিমানটির ব্ল্যাকবক্স উদ্ধার করেছে। গঠিত হয়েছে তদন্ত কমিটি। ইতোমধ্যে এই ঘটনায় কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নিয়ন্ত্রণ কক্ষে সে সময় দায়িত্বে থাকা ছয় কর্মকর্তাকে বদলি করা হয়েছে।

 

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads