• বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯, ৬ ভাদ্র ১৪২৫
ads
‘আকাশবীণা’ ঢাকায় আসছে আজ বিকালে

বিশ্বের সর্বাধুনিক প্রযুক্তির বোয়িং ৭৮৭ ড্রিমলাইনার উড়োজাহাজ ‘আকাশবীণা’

সংরক্ষিত ছবি

যোগাযোগ

‘আকাশবীণা’ ঢাকায় আসছে আজ বিকালে

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ১৯ আগস্ট ২০১৮

জাতীয় পতাকাবাহী সংস্থা বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের বহরে আজ রোববার যুক্ত হচ্ছে বিশ্বের সর্বাধুনিক প্রযুক্তির বোয়িং ৭৮৭ ড্রিমলাইনার উড়োজাহাজ ‘আকাশবীণা’। বিকালে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করবে চতুর্থ প্রজন্মের এ উড়োজাহাজ। এটি যুক্ত হওয়ার মধ্য দিয়ে বিমানের বহরে উড়োজাহাজ সংখ্যা দাঁঁড়াবে ১৫টি।

উড়োজাহাজটি দেশে আনতে গত বুধবার বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের পরিচালনা পর্যদের চেয়ারম্যান এয়ার মার্শাল (অব.) ইনামুল বারীর নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধিদল সিয়াটলে যান। শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে রানওয়ে ছুঁয়ে ট্যাক্সি বে আসা মাত্রই ‘ওয়াটার ক্যানন’ স্যালুটের মাধ্যমে আকাশবীণাকে স্বাগত জানানো হবে। বিমানের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) শাকিল মেরাজ জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী ১ সেপ্টেম্বর আকাশবীণার প্রথম বাণিজ্যিক ফ্লাইট উদ্বোধন করবেন।

সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৪৩ হাজার ফুট ওপর দিয়ে উড়তে সক্ষম দুই ইঞ্জিনবিশিষ্ট এ উড়োজাহাজ। বিশ্বের যে প্রান্তে থাকুক না কেন ঢাকায় নিয়ন্ত্রণ কক্ষের সঙ্গে সব সময় এর যোগাযোগ থাকবে। বোয়িং ৭৬৭ উড়োজাহাজের চেয়ে ২০ শতাংশ কম জ্বালানি লাগে নতুন এ বিমানের। টানা ১৬ ঘণ্টা ফ্লাই করতে সক্ষম এ উড়োজাহাজে আসন ২৭১টি; এর মধ্যে বিজনেস ক্লাসের ২৪টি। ড্রিমলাইনারে বসেই যাত্রীরা পাবেন ওয়াই-ফাই সুবিধা; বিশেষ এক ধরনের ফোনসেটের মাধ্যমে আকাশে ভ্রমণের সময়েই প্রিয়জনের সঙ্গে কথা বলার সুবিধা। এতে রয়েছে বিশ্বের আধুনিক সব বিনোদনের ব্যবস্থা।

২০০৮ সালে বিমান চারটি ড্রিমলাইনারসহ মোট ১০টি বোয়িং উড়োজাহাজ কেনার চুক্তি করে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক উড়োজাহাজ নির্মাতা কোম্পানি বোয়িংয়ের সঙ্গে। এর মূল্য ধরা হয় ২.১ বিলিয়ন ডলার। চুক্তি অনুযায়ী এরই মধ্যে তারা ছয়টি উড়োজাহাজ বিমানকে সরবরাহ করেছে। ড্রিমলাইনারের দ্বিতীয় উড়োজাহাজটি চলতি বছরের নভেম্বরে এবং বাকি দুটি আগামী বছরের সেপ্টেম্বর মাসে আসার কথা রয়েছে। এই তিন উড়োজাহাজ হচ্ছে হংসবলাকা, গাঙচিল ও রাজহংস।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads