• সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১ আশ্বিন ১৪২৫
ads
সিলেটে স্কুলছাত্র খুনের দায় স্বীকার ৪ আসামির

সিগারেট খেতে বাধা দেওয়ায় ঈদুল ফিতরের রাতে খুন করা হয় স্কুলছাত্র মশিউর রহমান তাসিনকে

প্রতীকী ছবি

অপরাধ

সিলেটে স্কুলছাত্র খুনের দায় স্বীকার ৪ আসামির

  • সিলেট ব্যুরো
  • প্রকাশিত ২৩ জুন ২০১৮

সিগারেট খেতে বাধা দেওয়ায় ঈদুল ফিতরের রাতে সিলেট নগরীর শিবগঞ্জ এলাকায় খুন করা হয় স্কুলছাত্র মশিউর রহমান তাসিনকে। আদালতের কাছে এমন জবানবন্দিই দিয়েছে হত্যাকাণ্ডে জড়িত চার যুবক। গত বুধবার শাহপরান থানা পুলিশ পৃথক অভিযানে ওই যুবকদের গ্রেফতার করে। তাদের মধ্যে তিনজনকে সিলেটের জৈন্তাপুর থেকে এবং অপরজনকে নগরীর জিন্দাবাজার এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। গত বৃহস্পতিবার তাদের আদালতে নেওয়া হলে তারা হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে।

চার যুবকের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, ঈদুল ফিতরের রাতে শিবগঞ্জ সাদিপুর রাস্তার মুখে হেয়ার গেইম সেলুনের সামনে মশিউর রহমান তাসিন তার বন্ধু রাফাত আহমেদ সানি, ফাহিম, মিনহাজ, রাহী, রায়হান এবং এলাকার বড় ভাই সুমন, সাক্কুসহ আড্ডা দিচ্ছিল। তখন নাইমুর রহমান রাব্বি (১৮), নিহাদ আহমদ উরফে লিহাদ আহমদ (১৮), মো. রফিক (১৮) ও মো. রাহী (২০) সেলুনের পাশের পান দোকান থেকে সিগারেট নেয়। তারা দোকানের সামনেই ধূমপান করতে থাকলে এটাকে বেয়াদবি বলে তাসিন ও তার বন্ধুরা ধূমপানে বাধা দেয়। কিন্তু আসামিরা তাসিন ও তার বন্ধুদের বাধা না শুনে তাদের বিদ্রূপ করে। এ সময় তাসিন ও তার বন্ধুরা রবিন ও তার সহযোগীদের মারধর করে বিদায় করে দেয়। এর প্রতিশোধ নিতে গ্রেফতার হওয়া চার যুবক ও তাদের কয়েক সহযোগীসহ শিবগঞ্জ মিতালি ফার্মেসির সামনে চায়ের দোকানে ওঁৎ পেতে থাকে। রাত ১০টায় মিতালি ফার্মেসিসংলগ্ন বাইতুল জান্নাত জামে মসজিদের কাছ দিয়ে যাওয়ার সময় তাসিন তার বন্ধু ফাহিম ও রাফাত আহমেদ সানির পথরোধ করে আসামিরা। তারা একপর্যায়ে তাসিনের গাল, গলা এবং ঊরুতে ছুরিকাঘাত করে চলে যায়।

সানি ও ফাহিম বন্ধু তাসিনকে উদ্ধার করে অটোরিকশা করে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (মিডিয়া) মুহম্মদ আবদুল ওয়াহাব বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, গ্রেফতার আসামিদের গত বৃহস্পতিবার আদালতে পাঠানো হয়। তাদের মধ্যে আসামি মো. রফিক ও মো. রাহী আদালতে হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেন। এ সময় তারা হত্যাকাণ্ডে জড়িত অন্যদেরও নামও প্রকাশ করেন।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads