• সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১ আশ্বিন ১৪২৫
ads
দুই সন্তানকে হত্যার পর বাবার আত্মহত্যা

দুই শিশুসন্তানকে হত্যার পর আত্মহত্যা করেছেন এক বাবা

প্রতীকী ছবি

অপরাধ

দুই সন্তানকে হত্যার পর বাবার আত্মহত্যা

দুবাই যাওয়ার টাকা মার খেয়ে করা মামলায়ও হারেন তিনি : পুলিশ

  • নরসিংদী প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ২৩ জুন ২০১৮

জেলার রায়পুরা উপজেলায় দুই শিশুসন্তানকে হত্যার পর আত্মহত্যা করেছেন এক বাবা। গতকাল শুক্রবার ভোরে রায়পুরা পৌর এলাকার তুলাতলী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। তাদের এমন মৃত্যুতে শোকে স্তব্ধ হয়ে পড়েছে গোটা এলাকা। পুলিশ জানিয়েছে, দুবাই যাওয়ার টাকা মার খাওয়ার পর এ সংক্রান্ত মামলায় হেরে হতাশ হয়ে পড়েছিলেন তুলাতলী গ্রামের অটোরিকশাচালক কাজল মোল্লা (৩২)। নিহত অপর দুজন হলো- তার মেয়ে কাকলী আক্তার (৮) ও ছেলে সোয়ান মোল্লা (৫)।

পুলিশ ও স্বজনরা জানান, কাজল মোল্লা নরসিংদী শহরে অটোরিকশা চালাতেন। কিছুদিন আগে ময়মনসিংহের নান্দাইল এলাকার রুহুল আমিনকে দুবাই যাওয়ার জন্য সাড়ে ৬ লাখ টাকা দেন তিনি। তাকে বিদেশে না পাঠিয়ে রুহুল আমিন টালবাহানা করতে থাকেন। টাকা ফেরত চাইলে গড়িমসি শুরু করেন। একপর্যায়ে কাজল তার বিরুদ্ধে নরসিংদীর আদালতে মামলা করেন। গত বৃহস্পতিবার মামলার রায় দেন আদালত। সাক্ষ্যপ্রমাণের অভাবে রায় কাজলের বিপক্ষে যায়। মামলায় হেরে প্রচণ্ডভাবে হতাশ হয়ে পড়েন কাজল। সন্ধ্যায় বেড়াতে যাওয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে দুই সন্তানকে নিয়ে বেরিয়ে যান তিনি। গতকাল সকালে স্বজনরা বাড়ির খানিকটা দূরে তুলাতুলী ঈদগাহ মাঠ সংলগ্ন এলাকায় কাজল ও তার দুই সন্তানের মৃতদেহ পড়ে থাকার খবর পান। সকাল ১০টার দিকে রায়পুরা থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়।

তুলাতলী গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, দুই সন্তানসহ বাবার মৃত্যুতে এলাকাজুড়ে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। গ্রামের লোকজন ভিড় জমিয়েছে তাদের বাড়িতে। স্বজনদের আহাজারিতে ভারী হয়ে উঠেছে পরিবেশ। স্বামী-সন্তানকে হারিয়ে পাগলপ্রায় স্ত্রী সাদিয়া বেগম। তিনি শুধু বিলাপ করছেন। কোনো সান্ত্বনাই থামাতে পারছে না তার কান্না। কান্নাজড়িত কণ্ঠে সাদিয়া বেগম বলেন, কাজল মামলার রায় শুনে ফেরার পর ছেলেমেয়েকে নিয়ে বেড়ানোর কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয়। পরে আমরা তার মৃত্যুর খবর পাই। নিহতের বড়ভাই সামসু মোল্লা জানান, দুই শিশুসন্তানের লাশ একটি ছোট ডোবায় পড়ে ছিল। কাজলের লাশ পাশেই একটি গাছের সঙ্গে ঝুলানো ছিল।

রায়পুরা থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) লুৎফর রহমান বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, মামলায় হেরে সন্তানদের নিয়ে কাজল মোল্লা আত্মহত্যা করেছেন। ওসি দেলোয়ার হোসেন জানান, কাজল তার ছেলেমেয়েকে পানিতে ডুবিয়ে হত্যার পর গাছে উঠে ফাঁসিতে ঝুলে আত্মহত্যা করেছেন। স্থানীয়রা জানান, কাজল ধার করে বিদেশে যাওয়ার জন্য ৬ লাখ টাকার বেশি সংগ্রহ করেন। সেই টাকা খোয়া যাওয়ায় মানসিকভাবে ভেঙে পড়েন তিনি। 

 

 

 

 

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads