• মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮, ২৯ কার্তিক ১৪২৫
ads
চামড়ার জিনিসের যত্ন

বর্ষার স্যাঁতসেঁতে আবহাওয়ায় চামড়ার পণ্যে ফাঙ্গাস পড়ে এবং এর চকচকে ভাব কমে যায়

ছবি : ইন্টারনেট

ফিচার

চামড়ার জিনিসের যত্ন

  • প্রকাশিত ২২ জুলাই ২০১৮

সাদিয়া আক্তার তানিয়া

লেদার বা চামড়ার পণ্যের প্রতি আকর্ষণ নেই এমন লোক খুঁজে পাওয়া ভার। কেননা চামড়ার জিনিসে বরাবরই ভিন্ন এক আভিজাত্য রয়েছে। লেদার অ্যাকসেসরিজগুলোও তাই বেশ জনপ্রিয়। চামড়ার ব্যাগ, জুতো, জ্যাকেট ইত্যাদি তরুণ-তরুণীদের কাছে তো খুবই পছন্দের। পছন্দের এ জিনিসগুলো যেন অনেক দিন ব্যবহার করা যায় সে জন্য প্রয়োজন বিশেষ যত্নের। বর্ষাকালে চামড়ার তৈরি এ জিনিসগুলোর প্রতি হতে হয় আরো বেশি যত্নশীল। কারণ বর্ষার স্যাঁতসেঁতে আবহাওয়ায় চামড়ার পণ্যে ফাঙ্গাস পড়ে এবং এর চকচকে ভাব কমে যায়।  

শখের জিনিসগুলো দীর্ঘদিন ব্যবহার করতে চাইলে জেনে নিন কীভাবে বর্ষায় এগুলোর যত্ন নেবেন।  

জুতা : চামড়ার যে পণ্যটি সবচেয়ে বেশি ব্যবহার হয় তা হলো জুতা। সারা দিন এই জুতা জোড়ার ওপর দিয়ে কেমন ধকল যায় ভেবে দেখেছেন? বর্ষায় বৃষ্টি আর রাস্তার জমে থাকা পানিতে যখন তখন ভিজে যায় জুতা জোড়া। এ সময় কিছু বিষয় খেয়াল করুন জুতাটিকে যত্নে রাখতে। 

* বর্ষার পানিতে যদি জুতা জোড়া ভিজেই যায়, তবে ভেজা জুতা নিউজপ্রিন্ট কাগজ দিয়ে ভেতর ও বাইরে কিছুক্ষণ মুড়িয়ে রাখুন। নিউজপ্রিন্ট পানি শুষে নেবে খুব তাড়াতাড়ি। ভালোভাবে মুছে নিতে ব্যবহার করতে পারেন সুতির নরম শুকনো কাপড়ও। 

* তারপরও রোদে ভালোভাবে জুতা জোড়া শুকিয়ে নিন। রোদ না থাকলে চুলার পাশে রেখে তাপে শুকিয়ে নিতে পারেন। মনে রাখবেন, ভেজা জুতা পরলে এর থেকে দুর্গন্ধ ছড়াতে পারে এবং খুব সহজেই জুতা জোড়া নষ্ট হয়ে যাবে। এ ছাড়া বার বার ভেজার কারণে জুতায় পচনও ধরতে পারে। 

* পানিতে জুতার পলিশ নষ্ট হয়ে যেতে পারে। তাই শুকানোর পর অবশ্যই ভালো কালি ও ক্রিম ব্যবহার করে জুতা পলিশ করিয়ে নিতে হবে। 

* বর্ষায় যতটা সম্ভব চামড়ার জুতা না পরাই ভালো। 

ব্যাগ : 

* চামড়ার ব্যাগটিতে বৃষ্টির পানি পড়লে বাড়িতে ফিরেই শুকনো কাপড় দিয়ে পানি মুছে ফ্যানের বাতাসে শুকিয়ে নিন। চামড়ার জিনিসে চকচকে ভাব আনার জন্য ইয়াম নামের এক ধরনের কেমিক্যাল ব্যবহার করা হয়। সেটি দিয়ে আলতো করে মুছে নিন। এতে জিনিসটি ভালো থাকবে অনেক দিন। তবে খেয়াল রাখবেন বেশি ঘষলে রং নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। চাইলে হাতের কাছে যেকোনো তেল (নারিকেল বা অলিভ অয়েল) দিয়েও মুছে নিতে পারেন।  

* তেল ছাড়াও পাওয়া যায়। এটি ‘ইয়াম’ নামে পরিচিত। এই কেমিক্যাল হালকা করে যেকোনো চামড়ার পণ্যের ওপর ঘষলে সেটা চকচকে হয়। আবার বেশি জোরে ঘষলে রং উঠে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। 

জ্যাকেট : 

* চামড়ার জ্যাকেট অনেক দিন আলমারিতে রাখতে হলে হ্যাঙ্গারে ঝুলিয়ে রাখাই ভালো। এতে করে জ্যাকেটের গায় ভাঁজ পড়ে না। তা ছাড়া প্লাস্টিকের ব্যাগেও বেশিদিন রাখলে বর্ষায় সেটি নষ্ট হয়ে যেতে পারে। তাই বেছে নিন কাপড়ের ব্যাগ। অনেকে ভেজা জ্যাকেট শুকাতে হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করেন, এটি একেবারেই ঠিক নয়। এতে চামড়া শক্ত হয়ে কুঁচকে যেতে পারে। ঘরের স্বাভাবিক তাপমাত্রায় ফ্যানের বাতাসে শুকিয়ে নিলেই যথেষ্ট। 

* জ্যাকেট খুব ড্রাই মনে হলে লেদার কন্ডিশনার দিয়ে জ্যাকেট পলিশ করিয়ে নিতে পারেন। এতে চামড়ার শুকনো ও কুঁচকানো ভাব দূর হবে।  

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads