• শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads
ইউটিউব থেকে ঘরে বসেই উপার্জন করুন

বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় ভিডিও শেয়ারিং প্লাটফর্ম ইউটিউব

ছবি : ইন্টারনেট

ফিচার

ইউটিউব থেকে ঘরে বসেই উপার্জন করুন

  • ইশতিয়াক আবীর
  • প্রকাশিত ২০ আগস্ট ২০১৮

আমরা কম বেশি সবাই জানি ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় করা যায়। কিন্তু যেটা জানি না সেটা হলো- এটা কীভাবে করা যায়। ইন্টারনেট থেকে টাকা আয়ের অনেক রকম উপায় আছে। নিয়মিত আমরা ধারাবাহিকভাবে সেগুলো জানব। চলুন আজকের পর্বে জেনে নিই ইউটিউব থেকে আয়ের উপায়গুলো।

ইন্টারনেটে অর্থ আয়ের সবচেয়ে জন্যপ্রিয় মাধ্যম গুগল অ্যাডসেন্স। এর মাধ্যমে আপনি ঘরে বসেই টাকা আয় করতে পারবেন। তবে গুগল অ্যাডসেন্স থেকে অর্থ আয়ের জন্য দুটি মাধ্যম রয়েছে।

ইউটিউব : বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় ভিডিও শেয়ারিং প্লাটফর্ম ইউটিউব। এই মাধ্যমের সঙ্গে পরিচিত নয় এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া যাবে না। তবে এখান থেকেও অর্থ আয় করা যায়- এটা অনেকেরই জানা নেই। আপনারা খেয়াল করলে দেখবেন, যখন আপনি ভিডিও দেখছেন তখন মাঝে মাঝে কিছু ভিডিও ও ব্যানার অ্যাডস দেখায়। মূলত এগুলোর মাধ্যমেই অর্থ আয় করা যায়। কিন্তু কীভাবে? 

ইউটিউব থেকে ইনকাম করতে চাইলে প্রথমে আপনার একটি ইউটিউব চ্যানেল থাকতে হবে। যেটাতে আপনি ভিডিও আপলোড করবেন। সেই ভিডিওতে অ্যাড দেখানোর মাধ্যমে গুগল অ্যাডসেন্স আপনাকে পে করবে। জিনিসটি যত সহজ মনে হচ্ছে, আসলে এতটা সহজ নয়। এর জন্য নির্দিষ্ট কিছু ক্রাইটেরিয়া পূরণ করতে হবে আপনাকে। সম্প্রতি অ্যাডসেন্স নিয়ম অনুযায়ী আপনার চ্যানেলে ওয়াচ টাইম মিনিমান চার হাজার ঘণ্টা হতে হবে এবং সাব-স্কাইবার থাকতে হবে ন্যূনতম এক হাজার।

কী ধরনের ভিডিও আপলোড করবেন?

খুব কমন একটি প্রশ্ন হচ্ছে, ভাই আমি কী ধরনের ভিডিও আপলোড করব? আসলেই এই প্রশ্নের উত্তর হচ্ছে, আপনি যে বিষয়ে পারদর্শী বা যে বিষয়ে অগ্রহী সেই বিষয়ের ভিডিও বানান। যেমন- ঘোরাঘুরি হয় যদি আপনার পছন্দ, তাহলে এই নিয়ে ভিডিও বানাতে পারেন। আবার ধরুন আপনি টেক নিয়ে বেশ অভিজ্ঞ। তাহলে এই নিয়েও ভিডিও তৈরি করতে পারেন। এক কথায় আপনি যে বিষয়ে দক্ষ ও আগ্রহী তা নিয়ে ভিডিও বানান।

অন্যের ভিডিও কি কপি করতে পারব?

এই প্রশ্নের সহজ উত্তর হচ্ছে- না। আপনি অন্য কোনো ভিডিও আপনার চ্যানেলে আপ করতে পারবেন না। করলেই কপিরাইট ধরবে, ফলে আপনার চ্যানেল সাসপেন্ড পর্যন্ত হতে পারে। শুধু ভিডিও নয়, কোনো প্রকার অডিও আপ করতে পারবেন না। যেমন ধরুন, আপনি একটা গানের স্লাইড ইমেজ দিয়ে ভিডিও বানালেন। এক্ষেত্রেও কপিরাইট ধরবে। তবে ফেয়ার ইউজের আওতায় কোনো ভিডিও থেকে ১০ সেকেন্ড পর্যন্ত ফেয়ার ইউজ পলিসির আওতায় ব্যবহার করা যাবে।

কত টাকা পাওয়া যাবে?

এই প্রশ্নের সঠিক উত্তর দেওয়া কঠিন। আপনার ভিডিও থেকে কত ইনকাম আসবে তার সঙ্গে অনেক কিছু জড়িত। যেমন ধরুন, আপনি যে বিষয় নিয়ে ভিডিও বানাচ্ছেন তার সিপিএম রেট। কোন দেশের মানুষ দেখছে এ রকম আরো অনেক কিছু। একেক দেশের সিপিএম রেট একেক রকম। এশীয় দেশগুলোতে সিপিএম রেড খুব কম। বিশেষ করে ভারত ও বাংলাদেশে। বাংলাদেশ থেকে একটা অ্যাড ক্লিকে আপনি সর্বোচ্চ .১০ ডলার আয় করতে পারবেন। আবার ইউরোপের কোনো দেশে সেই এক ক্লিকে আবার ১ ডলার পর্যন্ত আসতে পারে।

টাকা কীভাবে পাব?

টাকা পাওয়ার জন্য আপনাকে গুগল অ্যাডসেন্সের কিছু ক্রাইটেরিয়া পূরণ করতে হবে। সর্বপ্রথম  আপনার অ্যাকাউন্টে ১০ ডলার যোগ হলে গুগল অ্যাডসেন্স পিন ভেরিফিকেশন করতে হবে। এ জন্য তারা আপনার ঠিকানায় একটি খামে পিন পাঠাবে। খামটি হাতে পেয়ে আপনাকে সেটির পিন দিয়ে ভেরিফিকেশন করতে হবে। এরপর আপনার অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্টে ১০০ ডলার যোগ হলেই টাকা উত্তোলন করতে পারবেন।

তাই ধৈর্য ধরে অপেক্ষা করুন। লেগে থাকুন। মানসম্মত কন্টেন্ট তৈরি করুন। সফলতা আসবেই।

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads