• মঙ্গলবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৯, ৩০ আশ্বিন ১৪২৬
ads
রোজ গার্ডেন এখন সরকারি সম্পত্তি

রোজ গার্ডেনের বর্তমান মালিক লায়লা রকীবের কাছ থেকে বাড়িটির রেজিস্টার্ড দলিল গ্রহণ করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

সংগৃহীত ছবি

ফিচার

রোজ গার্ডেন এখন সরকারি সম্পত্তি

  • ইশতিয়াক আবীর
  • প্রকাশিত ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮

পুরান ঢাকার ঐতিহাসিক প্রাচীন স্থাপত্য রোজ গার্ডেন প্রাসাদ কিনে নিয়েছে বাংলাদেশ সরকার। ১৬ সেপ্টেম্বর বর্তমান মালিক লায়লা রকীব ও তার সন্তানদের কাছ থেকে বাড়িটি কেনার রেজিস্টার্ড দলিল গ্রহণ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সরকারের গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় রোজ গার্ডেনের বর্তমান মালিকদের সঙ্গে আলোচনা করে সম্পত্তির মূল্য নির্ধারণ করে ৩৩১ কোটি ৭০ লাখ টাকা। সেদিন গণভবনে প্রধানমন্ত্রী রোজ গার্ডেন ভবনের দলিল গ্রহণ করেন এবং অর্থের চেক ও রাজধানীর গুলশানে ২০ কাঠা জমিতে নির্মিত একতলা ভবন রোজ গার্ডেনের মালিকদের কাছে বিক্রয়-সংক্রান্ত দলিল হস্তান্তর করেন।

অনেক দিন থেকেই মালিকপক্ষ বাড়িটি বিক্রি করতে চাইছিল। বাড়িটি কেনার ব্যাপারে সরকারি মহলে বহুদিন ধরে আলাপ-আলোচনাও হচ্ছিল। স্মৃতিবিজড়িত এ জায়গাটি কোনো ব্যক্তিমালিকানায় দিতে রাজি ছিল না সরকার। আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় থাকার কারণেই ঐতিহাসিক এ স্থানটি ব্যক্তিমালিকানায় যাওয়ার হাত থেকে বেঁচে গেল।

নানাদিক থেকে এ বাড়িটির ঐতিহাসিক মূল্য অপরিসীম। ১৯৪৯ সালের ২৩ জুন এখানেই জন্ম হয়েছিল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের। মোগল স্থাপত্য, ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক, লোকজ ও ইউরোপীয় স্থাপত্যের শৈল্পিক সম্মিলন রোজ গার্ডেন সত্যিই এক অনন্য প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন। বাংলাদেশের প্রত্নতত্ত্ব বিভাগ ১৯৮৯ সালে রোজ গার্ডেনকে সংরক্ষিত ভবন ঘোষণা করে। দেশি-বিদেশি পর্যটকদের কাছে এটি ঢাকার অন্যতম একটি দর্শনীয় স্থান। এখন সরকার এটিকে জাদুঘর বানানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এখন বাড়িটি সম্পূর্ণ সরকারি তত্ত্বাবধানে। গেটে পুলিশ পাহারা। আপাতত সাধারণ দর্শনার্থীদের প্রবেশ নিষেধ। প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের লোকজন আসছেন, দেখছেন। উদ্বোধন হওয়ার আগে কোনো পরিকল্পনা তারা এখন জানাতে নারাজ। ঠিক কবে নাগাদ জাদুঘরটি উদ্ধোধন হতে পারে, তাও তারা জানাতে পারলেন না। তবে উদ্বোধন হওয়ার আগে বাড়িটি নতুন করে সাজানো হবে। এখানে নিশ্চয়ই সংযোজিত হবে সেই ঐতিহাসিক মুহূর্তের ছবি, যেদিন হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী, মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানীসহ আরো অনেক গণ্যমান্য ব্যক্তি এখানে উপস্থিত হয়ে মুসলিম লীগ থেকে সেরে এসে আওয়ামী মুসলিম লীগ গঠন করেছিলেন।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads