• বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮, ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪০
BK

আসমানি কিতাবের প্রতি ঈমান

আসমানি কিতাবের প্রতি ঈমান
সংরক্ষিত ছবি

ঈমানের রোকনগুলোর অন্যতম একটি হলো আল্লাহ প্রেরিত ‘আসমানি কিতাব’ বিশ্বাস করা। যত নবী-রসুলের ওপর ছোট-বড় এবং প্রসিদ্ধ-অপ্রসিদ্ধ কিতাব নাজিল হয়েছে, সব কিতাবের প্রতি ঈমান আনতে হবে। কিছু আসমানি কিতাবের নাম পবিত্র কোরআনে উল্লেখ হয়েছে, আবার কিছুর নাম উল্লেখ হয়নি। কিছু কিছু আসমানি কিতাবের নাম জানা যায় তবে বেশিসংখ্যক কিতাবের নামই জানা যায় না। ছোট-বড় কিংবা প্রসিদ্ধ-অপ্রসিদ্ধ যা-ই হোক, নাম জানা যাক আর না জানা থাকুক— সব আসমানি কিতাবের ওপর বিশ্বাস না রাখলে ঈমান পরিপূর্ণ হবে না। পবিত্র কোরআনের সুরা বাকারার ৪ নং আয়াতে আল্লাহ ইরশাদ করেছেন, আপনার প্রতি যা অবতীর্ণ হয়েছে এবং আপনার আগে যা অবতীর্ণ হয়েছে, তাতে যারা ঈমান রাখে তারাই মুত্তাকি।

হজরত মুসা (আ.)-এর ওপর নাজিল হওয়া তাওরাত সম্পর্কে পবিত্র কোরআনে ইরশাদ হয়েছে, নিশ্চয়ই আমি তাওরাত নাজিল করেছি, তাতে ছিল হিদায়েত ও আলো (সুরা মায়েদা, আয়াত-৪৪)। হজরত দাউদ (আ.)-এর ওপর নাজিল হওয়া জবুর সম্পর্কে ইরশাদ হয়েছে এবং আমি দাউদকে জবুর দিয়েছি (সুরা আল ইসরা, ১৬৩)। হজরত ঈসা (আ.)-এর ওপর নাজিল হওয়া ইনজিল সম্পর্কে ইরশাদ হয়েছে, আর আমি তাদের পেছনে মারইয়াম পুত্র ঈসাকে পাঠিয়েছিলাম তার সম্মুখে বিদ্যমান তাওরাতের সত্যায়নকারীরূপে এবং তাকে ইনজিল দিয়েছিলাম। এতে রয়েছে হেদায়াত ও আলো (সুরা আল মায়েদা, ৪৬)। আর পবিত্র কোরআন সম্পর্কে ইরশাদ হয়েছে, এই সেই কিতাব, যাতে কোনো সন্দেহ নেই। মুত্তাকিদের জন্য হেদায়াত (সুরা বাকারা, আয়াত-২)। সত্যিকার ঈমানদার হতে হলে কোরআনসহ পূর্ববর্তী সব আসমানি কিতাবের ওপর ঈমান আনা আবশ্যক। আসমানি কিতাবগুলোর ওপর ঈমান আনার অর্থ হলো— এগুলো আল্লাহর পক্ষ থেকে নাজিলকৃত আসমানি কিতাব— এটা বিশ্বাস করা। বিভিন্ন যুগের মানবজাতির হেদায়াতের জন্য আল্লাহ বিভিন্ন নবী-রসুলের ওপর এ কিতাবগুলো অবতীর্ণ করেছেন। এ ছাড়া সহিফা ও অজ্ঞাত আসমানি কিতাবের ওপরও সাধারণভাবে বিশ্বাস স্থাপন করতে হবে।

আর সর্বশেষ আসমানি গ্রন্থ কোরআনের ওপর ঈমান আনার মর্ম হলো— এতে যত হুকুম-আহকাম রয়েছে, তা স্বীকার করা এবং মান্য করা। এও বিশ্বাস রাখা যে, পবিত্র কোরআন আল্লাহর পক্ষ থেকে নাজিলকৃত সর্বশ্রেষ্ঠ ও সর্বশেষ আসমানি কিতাব। এ কিতাব নাজিল হওয়ার পর অন্যান্য আসমানি কিতাবের আমল-অনুসরণ রহিত হয়ে গেছে।

লেখক : আলেম ও সাংবাদিক