• সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৪
ads

আনিসুল হক

রাজনীতি

লন্ডনে আনিসুল হকের জানাজা সম্পন্ন

  • প্রকাশিত ০১ ডিসেম্বর ২০১৭

লন্ডনের একটি মসজিদে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আনিসুল হকের জানাজা হয়েছে।  শুক্রবার জুমার নামাজের পর রিজেন্ট পার্ক জামে মসজিদে এই জানাজা হয়।

প্রবাসী বাংলাদেশিদের সঙ্গে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলমও জানাজায় অংশ নেন।  একটি আন্তর্জাতিক সম্মেলনে অংশ নিতে লন্ডনে সফরে আছেন তিনি।

প্রায় চার মাস আগে সপরিবারে লন্ডনে গিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়া আনিসুল হক সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার মারা যান।  জানাজা শেষে প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম সাংবাদিকদের বলেন, “আনিস ভাই খুবই জনপ্রিয় একজন মানুষ ছিলেন।  উনি যে রকম শিল্প-সংস্কৃতিতে বাংলাদেশকে নতুন কিছু উপহার দিয়েছিলেন, উনি ব্যবসায়ী হিসেবেও নিজের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গড়ার পাশাপাশি বিশেষ করে বাংলাদেশের তৈরি পোশাক শিল্পকে নেতৃস্থানীয় একটি জায়গায় নিয়ে গেছেন।”

গত শতকের আশি ও নব্বইয়ের দশকে টিভি উপস্থাপক হিসেবে পরিচিতি পেয়েছিলেন আনিসুল হক।  তার উপস্থাপনায় ‘আনন্দমেলা’ ও ‘অন্তরালে’ অনুষ্ঠান দুটি জনপ্রিয়তা পায়।  চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করা আনিসুল হক আশির দশকে তৈরি পোশাকের বিকাশের পর্বে এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছিলেন।  কারখানায় চাকরি নিয়ে এক সময় নিজেই ব্যবসা শুরু করেন তিনি।

মোহাম্মদী গ্রুপের চেয়ারম্যান আনিসুল হকের তৈরি পোশাক ছাড়াও বিদ্যুৎ, তথ্যপ্রযুক্তি, আবাসন, কৃষিভিত্তিক শিল্প কারখানা রয়েছে।  ডিজিযাদু ব্রডব্যান্ড লিমিটেড এবং নাগরিক টেলিভিশনের মালিকানাও তার ব্যবসায়ী গ্রুপের।

তৈরি পোশাক ব্যবসায়ীদের সংগঠন বিজিএমইএ’র সভাপতি ছিলেন আনিসুল হক।  পরে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইয়েরও সভাপতি হন তিনি।

২০১৫ সালে ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে অনেকটা চমক হিসেবে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী হন আনিসুল হক।  ওই কথা তুলে ধরে শাহরিয়ার আলম বলেন, “আমরা অনেকে অবাক হয়েছিলাম তিনি যখন রাজনীতিতে যোগদান করেন।”

মেয়র নির্বাচিত হওয়ার পর এই দুই বছরে আনিসুল হক যারা কাজ করতে চান তাদের ‘স্বপ্ন দেখিয়ে গেছেন’ বলে মন্তব্য করেন এই আওয়ামী লীগ নেতা।  তিনি বলেন, “তিনি কারও কাছে মাথা হেট করেননি। অনেক শক্ত সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।  দলমত নির্বিশেষে সবার কাছে জনপ্রিয় হয়েছেন।”

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের তথ্য মতে, বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইটে আনিসুল হকের মরদেহ শনিবার সকালে ঢাকায় পৌঁছাবে।  ওই দিনই বাদ আসর আর্মি স্টেডিয়ামে জানাজা শেষে বনানী কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads