• মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮, ২৯ কার্তিক ১৪২৫
ads

খেলা

জিতেই সেমিতে লিভারপুল

  • স্পোর্টস রিপোর্টার
  • প্রকাশিত ১২ এপ্রিল ২০১৮

রবার্তো ফিরমিনো গোল করলেন। গ্যালারিতে বসে পেপ গার্দিওলা নিজের হাতে মুখ ঢাকলেন। ম্যানসিটির খেলোয়াড়রা যেন নিঃস্ব হয়ে গেলেন। গা-ছাড়া ভাব নিয়ে দাঁড়িয়ে রইলেন। সেই দৃশ্য দেখে কারো আর বোঝার বাকি  নেই- চ্যাম্পিয়নস লিগ থেকে বিদায় ম্যানচেস্টার সিটি। তাদেরকে হারিয়ে দশম বারের মতো সেমিফাইনালে লিভারপুল।

মঙ্গলবার ইতিহাদ স্টেডিয়ামে কোয়ার্টার ফাইনালের দ্বিতীয় লেগের খেলা। ম্যানসিটির বড় জয়ের বিকল্প ছিল না। ম্যাচের শুরুতে লিডও নেয়। কিন্তু ম্যাচটি হারে ১-২ গোলে। বিপরীতে দুই লেগ মিলে ৫-১ গোলে জয় পায় লিভারপুল।

বল পাস। নিয়ন্ত্রণ। একের পর এক আক্রমণ। সব দিক থেকে এগিয়ে থাকে স্বাগতিকরা। প্রথমার্ধে তারা বেশ দাপটও দেখায়। কিন্তু খেলার ৫৬ মিনিটে মোহাম্মদ সালাহ গোল করলে তাদের সেমির স্বপ্ন ভেঙে যায়। অবশ্য এই গোলের ১৬ মিনিট আগেই তারা জ্বালানি হারাতে শুরু করে। প্রথমার্ধের পর গ্যালারিতে বসে বাকি খেলা দেখতে বাধ্য হন তাদের জ্বালানির উৎস গার্দিওলা। রেফারির সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানাতে গিয়ে ডাগ আউট ছাড়তে হয় তাকে।

ম্যাচের শুরু থেকে ম্যানসিটি বেশ উজ্জীবিত থাকে। দ্বিতীয় মিনিটে গ্যাবিয়েল জেসুস গোল করে দলকে এগিয়ে দেন। স্টেডিয়ামভর্তি দর্শকও তাদের উৎসাহ জোগায়। বিরতির আগে আরো একবার বল জালে জড়ায়। স্পষ্ট গোলটি অফসাইডের কারণ দেখিয়ে বাতিল করে দেওয়া হয়। বিরতির সময় রেফারির এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানাতে যান গার্দিওলা।

মৌসুমের শুরু থেকে দুর্দান্ত ছিল ম্যানচেস্টার সিটি। স্বপ্ন ছিল চারটি শিরোপার। কারাবাও কাপ জিতে শিরোপার সূচনা করে। এফএ কাপ থেকে বাদ পড়লেও ট্রেবল জয়ের স্বপ্নটি বাঁচিয়ে রাখে। ছয় ম্যাচ হাতে থাকতে প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা জয়ের স্বপ্ন দেখে। কিন্তু গত এক সপ্তাহে যেন গার্দিওলার সব কিছু তছনছ হয়ে যায়।

লিভারপুলের কাছে প্রথম লেগে হারের পর ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের কাছে হেরে যায়। তাতে প্রিমিয়ার লিগের শিরোপার জন্য তার অপেক্ষা বাড়ে। রেডদের কাছে দ্বিতীয় লেগেও হেরে বিদায় নেয় চ্যাম্পিয়নস লিগ থেকে। এই প্রথমবারের মতো সাবেক বার্সেলোনা ও বায়ার্ন মিউনিখ কোচ টানা তিন ম্যাচ হারের স্বাদ পেলেন।

বার্সেলোনা ও বায়ার্নের হয়ে টানা সাতবার চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিফাইনালে যান গার্দিওলা। কিন্তু ম্যানসিটির দায়িত্ব নেওয়ার পর দুই মৌসুমেই শেষ চারে যেতে ব্যর্থ হন তিনি।

গার্দিওলা হয়তো অতি আত্মবিশ্বাসী ছিলেন। তাই পরিকল্পনায় ভুল হয়। লিভারপুলের মতো গুরুত্বপূর্ণ দলের বিপক্ষে রক্ষণভাগের গম্বুজ ভিনসেন্ট কোম্পানিকে একাদশে রাখেননি। আক্রমণভাগের তারকা সার্জিও আগুয়েরোকেও শুরুতে মাঠে নামানো হয়নি।

ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটে ম্যানসিটি গোল পায়। পরে একের পর এক আক্রমণ চালায়। তবে লিভারপুলের রক্ষণভাগ ভেদ করতে পারেনি। বিরতির আগে সিলভা একটি সুযোগ পেলেও তার শট গোলপোস্টে লেগে ফিরে আসে। আর সানের গোলটি বাতিল হয়ে যায়।

বিরতির পর যেন আর আত্মবিশ্বাস ফিরে পাচ্ছিলেন না সিটির খেলোয়াড়রা। গার্দিওলার ভূমিকায় কেউ অবতীর্ণ হননি। খেলার ৫৬ মিনিটে গোলরক্ষক অ্যান্ডারসনের হাত থেকে ছুটে যাওয়া বল জালে জড়িয়ে দেন মোহাম্মদ সালাহ। সমতায় ফেরে লিভারপুল। খেলার ৭৭ মিনিটে ম্যানসিটির কফিনে শেষ পেরেকটি ঠুকে দেন ফিরমিনো। উভয় তারকা এবার চ্যাম্পিয়নস লিগে আটটি করে গোল করেন, যা ক্লাবটির ইতিহাসে রেকর্ড।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads